অফিসে ভালো কর্মী হওয়ার পরামর্শ

অফিসে ভালো কর্মী হওয়ার পরামর্শ
ভালো কর্মী হওয়ার জন্য কর্মক্ষেত্রের রাজনীতির প্রতি মনযোগী না হয়ে নিজের দক্ষতা ও কাজের উন্নতি নিয়ে ভাবুন।

সুরুজ আহমেদ

ক’দিন মাত্র হলো নতুন কাজে যোগ দিয়েছেন। অফিসের হাবভাব প্রায় বুঝে গিয়েছেন। এখন টিকে থাকার চেষ্টা, সঙ্গে সকলের মধ্যে সেরা হওয়ার লড়াই করছেন। যদি গতানুগতিক নিয়মে সে চেষ্টা চালিয়ে যান, তাহলে ভালো কর্মীর বিশেষণ পওয়াটা দুষ্কর হবে। হলেও সময় সাপেক্ষ। বিষয়টা সহজ করতে অনেকেই আবার সহকর্মীদের সঙ্গে নানা রকম দলাদলিতে জড়ান। এ ক্ষেত্রে কর্মক্ষেত্রের রাজনীতির প্রতি মনযোগী না হয়ে নিজের দক্ষতা ও কাজের উন্নতি নিয়ে ভাবুন। কাজটা আয়ত্ত করুন। তাহলে খুব সহজেই সফলতা পাবেন।

একজন ভালো কর্মীর কী কী বৈশিষ্ট্য থাকা উচিত, দেখুন। আপনার সঙ্গে মিলিয়ে নিন। মিল না পেলে পরামর্শ অনুযায়ী চর্চা করুন। কর্মক্ষেত্রে ভালো কর্মীর সুনাম অবশ্যই পাবেন।

১) অফিস টাইম মেনে চলুন। ঠিক সময়ে অফিসে ঢুকুন। নির্দিষ্ট সময়ের আগে অফিস ছাড়বেন না। কোনো কারণে আগে বের হওয়ার প্রয়োজন থাকলে বসের অনুমতি নিয়ে নেবেন।

২) সব সময় সৎ থাকবেন। উপযুক্ত কারণ ছাড়া অফিস ফাঁকি দিবেন না।  ছুটির  দরকার পড়লে আগে থেকেই অফিসে দরখাস্ত দিয়ে রাখুন। আর্থিক লেনদেনে সতর্ক থাকুন।

৩) অফিসিয়াল বিহেভিয়ার মেনে চলুন। সবার সাথে ভালো সম্পর্ক রাখুন। অফিসে বিনোদনধর্মী কাজের মাধ্যমে নিজেকে সতন্ত্র করে তুলুন। অফিসের পরিবেশ সহজ রাখুন। চলাফেরায় সরল থাকুন। এতে করে আপনি অফিসে না গেলেও সহকর্মীরা আপনাকে মিস করবেন।

৪) নিজের দক্ষতা প্রকাশ করুন। একা অনেক কাজের দায়িত্ব নেওয়ার অভ্যাস করুন। অন্যদেরকেও সাহায্য করুন। তাহলেই আপনি সবার ভালবাসা ও ভারসার পাত্র হয়ে উঠবেন।

৫) বসের অনুগত থাকুন। সব কাজেই হ্যাঁ কে হ্যাঁ না কে না বলবেন না। চিন্তা-ভাবনা করে উত্তর করবেন। কর্মক্ষেত্রের কোনো্ বিষয়ে দ্বিমত থাকলে বসের সঙ্গে পরামর্শ করবেন। অফিস পরিচালনা পর্ষদের বিরুদ্ধে না য্ওয়াই ভালো। সব সময় সঙ্গতিপূর্ণ মতামত দিন।

৬) সহকর্মীদের সঙ্গে ভালো ব্যবহার করুন। সমস্যায় পড়লে সিনিয়রদের সঙ্গে আলোচনা করুন। সহকর্মীরা কেউ সাহায্য চাইলে যতটা সম্ভব সাহায্য করার চেষ্টা করুন।

৭) যে কোনো ব্যাপারে নিখুঁত পরিকল্পনা করুন। পরিকল্পনায় সবার সেরা হয়ে উঠুন। অফিস আপনাকে আলাদা গুরুত্ব দেবে।

৮) যে কোনো আয়োজনেই আয়োজকের ভূমিকা নিন। অফিস পার্টি, মিটিং বা কোনো সহকর্মীর জন্মদিনে প্রথম পদক্ষেপটা আপনিই নিন। দারুন একটি অনুষ্ঠান উপহার দিন।

৯) বসের সঙ্গে ভালো সম্পর্ক রাখুন। তাঁর স্নেহভাজন হয়ে উঠুন। বস কোনো কাজ দিলে তা নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে জমা দিন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here