আজও অ্যাওয়ার্ড শো এড়িয়ে চলেন আমির! জানেন কেন?

চকোলেট বয় নায়ক হিসেবেই শুরু করেছিলেন৷ কিন্তু এক দশকে যেভাবে নিজেকে বদলে ফেলেছেন আমির।

ভারতীয় সিনেমার মডেল কী হওয়া উচিত? খুব আদর্শ-তত্ত্বের কচকচিতে না গিয়ে, সহজ উদাহরণ হিসেবে বলাই যায় ‘ব্র্যান্ড আমির খান’৷ চকোলেট বয় নায়ক হিসেবেই শুরু করেছিলেন৷ কিন্তু এক দশকে যেভাবে নিজেকে বদলে ফেলেছেন আমির, তা নিঃসন্দেহে ভারতীয় সিনেমার জার্নিতে চমকপ্রদ৷ ছবির মধ্যে জাতীয়তাবাদের বীজ বোনা থেকে বিপণনের কায়দাকানুন, বার্তা থেকে ব্যবসার মাইলস্টোন, লুক-অভিনয় থেকে বিষয় বৈচিত্রের কড়াখাপ্পা প্যাকেজিং- প্রায় প্রতিটি ছবিতে যেভাবে নতুন হয়ে হাজির হয়েছেন আমির, তা বলিউডকে দিয়েছে বাড়তি মাইলেজ৷ তাঁর সমসাময়িক অন্য দুই খানও রাজ করছেন বলিউডে৷ কিন্তু শাহরুখ, সলমন যেভাবে আম জনতার নায়ক, ঠিক সে কথা বলা যায় না আমিরের ক্ষেত্রে৷ অথচ তিনিও আম জনতারই নায়ক৷ বিনোদনের ধারণা এক রেখেও, মাত্রার রকমফেরে নিজেকে অন্যদের থেকে অনেকটাই আলাদা করে ফেলেছেন আমির৷ সেটাই তাঁর সাফল্য ও ইউএসপি৷ আজ তাঁর জন্মদিন। তাঁকে জানাই আন্তরিকভাবে সশ্রদ্ধ সম্মান, ভালোবাসা..। তাঁর জন্মদিনে জেনে নেওয়া যাওয়া যাক, আমিরের জীবনের বেশ কিছু কম জানা তথ্য৷

অভিনয়ের পাশপাশি তাঁর প্যাশন দাবা আর লন টেনিসেও৷
অভিনয়ের পাশপাশি তাঁর প্যাশন দাবা আর লন টেনিসেও৷

সিনেমায় যতটা সিরিয়াস, বাস্তব জীবনে ততটাই দুষ্টুমি করতে ভালবাসেন৷ আমির-জুহির বন্ধুত্ব ইন্ডাস্ট্রিতে সুবিদিত৷ কিন্তু সেই জুহির সঙ্গেই এমন প্র্যাঙ্ক করেছিলেন যে দু’জনের কথাবার্তা পর্যন্ত বন্ধ ছিল৷ অ্যাওয়ার্ড শোয়ে যান না আমির৷ যে বছর ‘দিল’-এর জন্য তিনি সেরা অভিনেতার মনোনয়ন পেয়ে ছিলেন, সেবারই ‘ঘায়েল’-এর জন্য মনোনীত হয়েছিলেন সানি দেওলও৷ পুরস্কারের শিকে ছেঁড়ে সানির ভাগ্যে৷ তারপর থেকে এই ধরনের শো বয়কট করেছেন আমির৷

যে মাদাম তুসোর মিউজিয়ামে আছে অমিতাভ থেকে শাহরুখ এমনকী করিনা কাপুরেরও মূর্তি, সেখানকার প্রস্তাবও ফিরিয়ে দিয়েছিলেন আমির৷ ‘ওম শান্তি ওম’ ছবির একটি গানের জন্য ইন্ডাস্ট্রির প্রায় সকলেই হাজির ছিলেন৷ ধর্মেন্দ্র, মিঠুন চক্রবর্তীরাও বাদ যাননি৷ কিন্তু পরিচালক ফারহা খানের প্রস্তাব সবিনয়ে প্রত্যাখান করেন আমির৷ মোটে ১৬ বছর বয়সে বন্ধুর সঙ্গে একটি নির্বাক শর্ট ফিল্ম বানিয়েছিলেন আমির৷

সিনেমায় যতটা সিরিয়াস, বাস্তব জীবনে ততটাই দুষ্টুমি করতে ভালবাসেন৷
সিনেমায় যতটা সিরিয়াস, বাস্তব জীবনে ততটাই দুষ্টুমি করতে ভালবাসেন৷

বছর দু’য়েক এক থিয়েটারেও কাজ করেছেন আমির৷ ব্যাকস্টেজে কাজ করতেন৷ তারপরই অভিনেতা হবেন ঠিক করেন৷ যদিও তাঁর বাবার ইচ্ছে ছিল না যে, তিনি অভিনেতা হন৷

আমিরের নাকি খাওয়া দাওয়া নিয়ে বদভ্যাস আছে, জানাচ্ছেন তাঁর স্ত্রী কিরণ রাও৷ আরও একটা সিক্রেট ফাঁস করেছেন তিনি৷ সেটা হল আমির নাকি স্নান করতে বিলকুল পছন্দ করেন না৷

 

সূত্রঃ সংবাদ প্রতিদিন

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here