কাজের মাঝে ঘনঘন হাই উঠছে?

0
364
ঘন ঘন হাই তোলা যেমন বিরক্তিকর তেমনি বিব্রতকর

সকাল-বিকাল যেকোনো সময়ে হুটহাট করে হাই তোলা খুব সাধারণ একটি ব্যাপার। বিশেষ করে একটানা কাজের মাঝে খুব ক্লান্ত হয়ে গেলেই হাই ওঠে সবচাইতে বেশী। ঘন ঘন হাই তোলা যেমন বিরক্তিকর তেমনি বিব্রতকর। বিশেষ করে সেটা অফিসে, কাজের মাঝে বা কোন জরুরী মিটিঙের মাঝে হলে। এই ঘন ঘন হাই তোলার হাত থেকে রক্ষার পাওয়ার কিছু উপায় আছে। চলুন, জেনে নেইঃ

১। কাজে বিরতি দিনঃ

অনেক সময় কাজ করতে করতে অতিরিক্ত কান্তি চলে এলে আমরা বিরক্তি প্রকাশ হিসেবে হাই তুলে থাকি। কাজের ফাঁকে বা মিটিংয়ের মাঝে হাই উঠতে থাকলে একটু সময় বের করে বাইরে থেকে হেঁটে আসুন। চোখ-মুখ পানি দিয়ে ধুয়ে আবার কাজে বসুন।

২। লম্বা নিঃশ্বাস নিনঃ

প্রিন্সটন বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজ্ঞানীরা এক গবেষণায় দেখেছেন আমদের মস্তিষ্ক গরম হয়ে গেলে, বাতাসের অভাবে আমরা হাই তুলে থাকি। তাই যখন ঘন ঘন হাই আসবে তখন নাক দিয়ে লম্বা লম্বা নিঃশ্বাস গ্রহণ করুন এবং মুখ দিয়ে শ্বাস বের করে দিন। দেখবেন হাই তোলা অনেকটা কমে গেছে।

অনেক সময় ক্লান্ত হয়ে গেলে লম্বা লম্বা হাই চলে আসতে পারে।
অনেক সময় ক্লান্ত হয়ে গেলে লম্বা লম্বা হাই চলে আসতে পারে।

৩। ঠান্ডা পানি পান করুনঃ

অনেক সময় ক্লান্ত হয়ে গেলে লম্বা লম্বা হাই চলে আসতে পারে। শরীর ডিহাইড্রেটেড হয়ে গেলে এমন হয়। এমন হলে ঠাণ্ডা পানি পান করুন। এতে হাই তোলা কিছুটা হলে কমে যাবে।

 

 

৪। ক্লান্তি কমানঃ

কাজের বা মানসিক চাপে শরীরে ক্লান্তি চলে আসাটাই স্বাভাবিক। আর এই ক্লান্তি থেকে হাই তোলা হয়। তাই ক্লান্তি দূর করার জন্য পর্যাপ্ত পরিমাণের ঘুমের প্রয়োজন রয়েছে। এতে শারীরিক মানসিক দুই স্বাস্থ্যই সুস্থ থাকবে।

৫। ঠান্ডা কিছু খানঃ

ঘন ঘন হাই উঠলে ঠান্ডা কিছু খান। তা হতে পারে ফ্রিজে রাখা শসা বা অন্য কোন ফল। এটি আপনার শরীরের তাপমাত্রে কমিয়ে হাই তোলা রোধ করবে।

৬। হাই তোলা ব্যক্তিদের এড়িয়ে চলুনঃ

হাই তোলা অত্যন্ত ছোঁয়াচে। কাউকে ঘন ঘন হাই তুলতে দেখলে আমাদের নিজেদেরও হাই চলে আসে। তাই ঘন ঘন হাই তোলা ব্যক্তিদের দিকে পারতপক্ষে না তাকানোর চেষ্টা করুন।

তথ্যসূত্রঃ উইকি হাউ

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here