কোন মুখের আদলে কেমন চশমা পরবেন?

0
2656

ভেজাল আর ফরমালিনের যুগে এসে চোখের সমস্যা হওয়া আজকাল আর নতুন কিছু না। কিন্তু চশমা পরলে ফ্যাশন করা যাবে না- এই ভ্রান্ত ধারণাটি রয়েছে অনেক তরুণীর। মুখের আদলের সাথে মিল রেখে নতুন দিনের স্টাইলিশ যেকোনো চশমা পরলেই আপনার ফ্যাশনেও নান্দনিকতা যুক্ত হবে আর চোখও ভালো থাকবে।

ভ্রুর আকৃতি বিবেচনায় রেখে চশমা কোথায় পরবেন তা ঠিক করে নিতে হবে। ভ্রুর খুব উপরে বা খুব নিচে চশমা পরা পরিহার করুন। এক্ষেত্রে উল্লেখযোগ্য যে সানগ্লাস যেন অবশ্যই আপনার ভ্রু কভার করে তা নিশ্চিত করুন। নাহলে আপনাকে দেখতে কিন্তু কার্টুনের মতো লাগতে পারে!

এবার তাহলে জেনে নেয়া যাক কোন মুখের আদলে কেমন চশমা পরতে হবে:900-177037509-woman-with-bold-frame

গোল মুখে গোল চশমা, একদম মানায় নাঃ

আপনার মুখের আকৃতি যদি গোল হয় তবে গোল ফ্রেমের চশমা পরিহার করুন। গোল ফ্রেমের বদলে বরং অ্যাংগুলার বা কোণাকৃতির চশমা পরুন। এতে মুখটা একটু সূক্ষ্ম দেখাবে ও মুখের সাথে দারুণ মানিয়ে যাবে।

বিড়াল চোখীরা অ্যাংগুলার বা কোণাকৃতির চশমা পরতে পারেন নির্দ্বিধায়।

উপবৃত্তাকার মুখের জন্য মোটা ফ্রেমের চশমাঃ

যাদের মুখ কিছুটা লম্বা ও চিকন, এক কথায় যাকে বলে উপবৃত্তাকার তারা বিভিন্ন ধরণের স্টাইলিশ মোটা ফ্রেমের চশমা বেছে নিতে পারেন। চিকন ফ্রেমের চশমা এড়িয়ে চলুন। এধরণের চশমায় আপনার মুখ আরও লম্বা মনে হবে। ফ্রেম মোটা হলে তা আপনার চিকন মুখকে কিছুটা ভারী করে তুলবে।

হৃদয় আকৃতির মুখের জন্য খেয়াল রাখতে হবে ফ্রেমের প্রস্থের দিকেঃ

যাদের চিবুক একটু চোখা যাকে কিনা বলে পয়েন্টেড চিন, তাদেরকে ফ্রেমের নিচের প্রান্ত মোটা ও উপরের প্রান্ত চিকন জাতীয় চশমায় ভালো মানাবে। ফ্রেমে বিপরীতমুখী পিনধর্মী কোন নকশা থাকলে পুরো সাজের মধ্যে আপনার চোখ দুটোই সবার আগে নজর কাড়বে।900-144799797-woman-with-rectangular-eyeglasses

নাক যদি চ্যাপ্টা হয় তাহলে কি পরব?

যাদের নাক চ্যাপ্টা তাদের নাক যেন কিছুটা খাড়া দেখায় সেজন্য একটু বুদ্ধি করে চশমার ফ্রেম বেছে নিতে হবে। আপনারা ফ্রেমের দৈর্ঘ্য খুব বেশি, অর্থাৎ নাক চোখ ছাড়িয়ে নাকের অর্ধেক দখল করে নিচ্ছে এধরণের চশমা পরিহার করুন। আবার চশমার দুই গ্লাসের মধ্যে যদি ব্যবধান কম থাকে তবে আপনার নাকের প্রস্থ বেশ খানিকটা কম দেখাবে।

কপাল বড় হলে যেমন চশমা বেছে নেবেনঃ

আমাদের অনেকেরই কপাল কিছুটা বড়, অর্থাৎ চুলের রেখা শুরু হয়েছে কপাল ছাড়িয়ে আরেকটু পর থেকে। সেক্ষেত্রে চশমা বেছে নেয়ার ক্ষেত্রে গাঢ় রঙের ও আনুভুমিক রেখা বরাবর ভারী জাতীয় চশমা পরতে পারেন। রিমলেস বা স্বচ্ছ ধরণের চশমা এড়িয়ে চলুন, তা নাহলে এই চশমা আপনার কপালকে আরও দীর্ঘায়িত হিসেবে উপস্থাপন করবে।

জোড়া ভ্রু হলে কেমন চশমা পরবেন?

আপনার যদি জোড়া ভ্রু থাকে আর আপনি তা প্লাক করে না ফেলতে চান তবে চশমা বেছে নিতে হবে একটু চিন্তা করে। আপনি হালকা রঙের যেকোনো ফ্রেম বাদ দিন এবং চশমার সাথে নাক ফুল পরবেন না। নাক ফুল পরলে পুরো মুখে আর যাই পরুন না কেন ঐ নাক ফুলটাই আগে চোখে পড়বে। কাজেই যেসব চশমার ফ্রেম একটু ভারী সেগুল বেছে নিতে পারেন।

কাজেই চশমা নিয়ে বিব্রত না হয়ে চোখের সাথে ও মুখের সাথে মানানসই চশমা কিনে নিজেকে করে তুলুন আরও স্মার্ট।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here