গ্যাসের চুলার নিচে দিয়ে বানান দারুণ স্বাস্থ্যকর মজার দই!

ছোট থেকে শুরু করে বড়রা সবাই পছন্দ করে দই, সহজে হজম হয়।

গরমে প্রাণ অতিষ্ঠ। দিনের বেলায় বাইরে বের হলেই ঘামে ভিজে যাচ্ছে শরীর। কেবল দিনে নয়, সন্ধ্যায় বা রাতে ঘরে বসেও ঘামতে হচ্ছে গরমে। গরমে দেহ ঠান্ডা রাখতে স্বাভাবিক শারীরবৃত্তীয় প্রক্রিয়ায় ঘামের সৃষ্টি হয়। তবে এ কারণে শরীরে পানিশূন্যতাও দেখা দেয়। পানিশূন্যতা দূর করতে বেশি বেশি পানি পান করার কোনো বিকল্প নেই। তবে কেবল পানি পান করেই গরমের দিনে শরীর সুস্থ রাখা সম্ভব নয়। এ জন্য প্রয়োজন পানির সাথে মিষ্টি বা টক দই দিয়ে বানানো ঠান্ডা এক গ্লাস লাচ্ছি বা শরবত। বাড়িতেই শরবত বানিয়ে নেওয়া যাবে সহজে যদি আপনার ঘরে থাকে দই । ছোট থেকে শুরু করে বড়রা সবাই পছন্দ করে দই, সহজে হজম হয়। তাহলে চলুন জেনে নিই কিভাবে এই দারুণ স্বাস্থ্যকর মজার খাবারটি  সহজে ঘরে বসে তৈরি করা যায়।

প্রয়োজনীয় উপকরণ
প্রয়োজনীয় উপকরণ

প্রয়োজনীয় উপকরণঃ

* দুধঃ ৩ লিটার

*চিনিঃ ৫/৬ টেবিল চামচ

* টক দইঃ ৫/৬ টে.চামচ (চাইলে আরো একটু বেশি নিতে পারেন)

*ছাঁকনিঃ ১ টি

* দই বসানো জন্য বাটি

চুলার নিচে দই বানানো বিভিন্ন ধাপ।
চুলার নিচে দই বানানোর বিভিন্ন ধাপ।

প্রস্তুত প্রণালীঃ

১) ৩ লিটার দুধ জ্বাল দিয়ে দিয়ে পোনে ২ লিটার করুন

২) ঘনদুধ কে ঠাণ্ডা (সাধারণ) করুন, এবার ঠাণ্ডা দুধকে ছাঁকনি দিয়ে ছেঁকে ডেকচিতে নিন।

৩) এই দুধের সাথে ৫/৬ টেবিল চামচ চিনি দিন (আপনার স্বাদ মত)।

এবার ভাল করে চামচ দিয়ে নাড়ুন যেন চিনি একেবারে মিশে যায়। (অন্য বাটিতে টক দই এর সাথেও ১ চামচ চিনি মিশান দুধ দিয়ে ভাল করে মিশায়ে নিতে হবে।)

৫) চিনি গলে গেলে দুধসহ ডেকচি চুলায় বসান। জাল দিয়ে কসুম গরম হলে তাতে দুধ মিশানো টক দই মেশান, এবার ২ মিনিট খুব ভাল করে নাড়ুন যেন টক দই ভাল করে মিশে যায়।

৬) এবার যে পাত্রে দই বসাবেন সেই পাত্রে ঢালুন।  ঢালার আগে বাটিগুলো একটু গরম করে নিলে ভাল হয়। (আমি আড়ং এর দই এর বাটিতে বসিয়েছি, এভাবে ডিসপোজেবল গ্লাস বা বাটিতেও হবে)

৭) এবার আপনার চুলার নিচে খালি জায়গায় ঢাকনা ছাড়া বাটিগুলো রেখে দিন। চুলা জ্বালানো থাকবে চিত্রের মত করে।

(সব উপকরণ মেশানো ঠিক হলেই দই বসবে) আপনার  অন্নান্য রান্না শেষ হওয়ার আগেই।

দই বসলে চুলার নিচ থেকে বের করে সাধারণ ঠাণ্ডা হলে ফ্রিজে রাখুন ঢাকনা দিয়ে এবং এভাবে ১ বার বানায়ে ৭/৮ দিন খেতে পারবেন মজা করে।

** টক দই খেতে চাইলে শুধু চিনি মেশাবেন না, বাকি সব প্রক্রিয়া একই থাকবে।

সূত্রঃ জেসমিন আখতার

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here