চর্চার মাধ্যমে মস্তিষ্ক ভালো রাখা

উপলব্ধি করুন রঙের দৃঢ়তা

মস্তিষ্কের ভাঁজে রঙধনুর সাতটি রঙ গুঁজে নিন তো! কাজ কঠিন কিছু নয়। চোখ বন্ধ করে একেকটি রঙের নাম উচ্চারণ করুন। সঙ্গে রঙটি দেখার চেষ্টা করুন। যেমন উচ্চারণ করলেন সবুজ। চোখ বন্ধ করেই রঙটিকে দেখার চেষ্টা করুন, উপলব্ধি করুন রঙের দৃঢ়তা, সতেজতা।

উল্টিপাল্টি

জানেনই তো, মস্তিষ্ক আমাদের সব কাজেই প্রভাব বিস্তার করে। কাজ হলো, অভ্যস্থতাকে এক পাশে সরিয়ে মাঝে মধ্যে অনভ্যস্থতার সঙ্গে মস্তিষ্কের সংযোগ। যেমন, আমরা অধিকাংশই ডান হাতে কাজ করে অভ্যস্থ। চেষ্টা করুন মাঝে মাঝে বাম হাতে লিখতে, দাঁত ব্রাশ ও অন্যান্য কাজ করতে।

সাত শব্দে সাজান

মজার এ খেলাটি আপনার লেখা ও কথা বলাকে আরো গোছাল করবে। ছোট্ট একটা গল্প লিখুন। এবার গল্পটিকে মাত্র সাত শব্দে বলুন তো!

খুঁজে দেখি!

টেবিলে যে তিনটি প্রতীক রয়েছে সেগুলোকে মাত্র ৯০ সেকেন্ডে খুঁজে বের করা। এক একটি প্রতীকের জন্য সময় মাত্র ৩০ সেকেন্ড। দেখুন তো ৩০ সেকেন্ডে টেবিলের ভিন্ন ভিন্ন প্রতীকগুলোকে আলাদাভাবে গুনে বের করতে পারেন কিনা!

না দেখে বলি…

একটি বিস্তারিত ছবি দেখুন। খুঁটিয়ে খুঁটিয়ে ছবির সবগুলো উপকরণ মনে রাখার চেষ্টা করুন। এবার ছবিটি উল্টে রেখে কাগজে লিখে ফেলুন ছবিতে যেসব উপকরণ ছিল সেগুলোর নাম। এবার মিলিয়ে দেখুন কয়টি উপকরণ আপনি লিখতে পেরেছেন ও কয়টি বাদ পড়েছে।

নোটবুক

সবসময় নোটবুক সঙ্গে রাখুন। সব গুরুত্বপূর্ণ তথ্য, কাজ, অ্যাপোয়েন্টমেন্ট সব লিখে রাখুন। স্ট্রেস বা দুশ্চিন্তা-বিষয়ক সমস্যাগুলোও টুকে নিন। আপনি যদি কর্মজীবী হোন তাহলে দৈনন্দিন কাজের টুকিটাকি ও মিটিংয়ের ছোটখাটো ব্যাপারগুলো নোটবুকে তুলে নিন।

উল্টো দিকে গুনি

রাতে ঘুমানোর সময় চোখ বন্ধ করে ২০০ থেকে ১ পর্যন্ত উল্টো গুনুন। গোনার সময় সংখ্যাগুলোকে দেখার চেষ্টা করুন। মনে মনে ভাবুন, আপনি একটি ব্ল্যাকবোর্ডের সামনে দাঁড়িয়ে রয়েছেন। নিজের হাতেই লিখছেন ২০০। এবার সংখ্যাটিকে দেখুন। ডাস্টার দিয়ে মুছে এর পেছনের সংখ্যা লিখুন। এভাবে ১ পর্যন্ত নেমে আসুন।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here