ডায়েট করছেন? তাহলে খেয়াল রাখুন…

খেয়াল রাখুন আপনার ডায়েট অভ্যাস সপ্তাহে ২ পাউন্ডের বেশি ওজন কমিয়ে দিচ্ছে কিনা।

আমরা যখন বাড়তি ওজন কমানোর সিদ্ধান্ত নেই, তখন প্রথমেই যে কাজটি করি তা হলো, খাদ্যতালিকা থেকে বিভিন্ন ধরনের খাবার বাদ দেই। প্রথমেই চর্বিজাতীয় খাবারের সঙ্গে বাদ পড়ে শরীরের জন্য প্রয়োজনীয় ক্যালরি সরবরাহ করে এমন সব খাদ্য উপাদান। ওজন কমিয়ে শরীরের ফিটনেস বৃদ্ধির বদলে নিজের অজান্তেই শরীরের ক্ষতি করছি অনেকেই। প্রশ্ন উঠতে পারে, দীর্ঘদিন শরীরে ক্যালরি ঘাটতি হলে তাতে কি দীর্ঘমেয়াদি প্রভাব পড়ে? উত্তর, হ্যাঁ। পুষ্টিবিদরা বলেন, দীর্ঘদিন প্রয়োজনীয় ক্যালরির ঘাটতি শরীরের বিপাক ক্রিয়াকে ক্ষতিগ্রস্ত করে। এর মানে ওজন কমাতে গিয়ে আপনি শরীরেরই ক্ষতি করছেন।

সম্প্রতি নিউ ইংল্যান্ড জার্নাল অব মেডিসিন থেকে কয়েকজন নারী-পুরুষের ওপর জরিপ চালানো হয়, যারা এক বছর মেয়াদে ওজন কমাতে গিয়ে খাদ্যতালিকা থেকে ক্যালরিজাতীয় খাবার দূরে রেখেছেন। সেখানে দেখা গেছে,  চূড়ান্ত লক্ষ্যে পৌঁছানোর আগেই তাদের শরীরে নানা ধরনের হরমোন-সংক্রান্ত পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া তৈরি হয়েছে। তাই আপনি যদি ডায়েট রুটিনের মধ্যে থাকেন, তাহলে খেয়াল করুন নিচের এ উপসর্গগুলো আপনাকেও ভোগাচ্ছে কিনা—

দীর্ঘদিন প্রয়োজনীয় ক্যালরির ঘাটতি শরীরের বিপাক ক্রিয়াকে ক্ষতিগ্রস্ত করে।
দীর্ঘদিন প্রয়োজনীয় ক্যালরির ঘাটতি শরীরের বিপাক ক্রিয়াকে ক্ষতিগ্রস্ত করে।

শরীরে আলসেমি ভর করছে?

আপনি হয়তো নিয়মিত ডায়েট করেন, কিন্তু কর্মক্ষেত্রে নিজের কর্মদক্ষতা ধরে রাখতে রীতিমতো লড়াই করতে হয় কিংবা আগে যেখানে নিয়মিত সামাজিক সব ধরনের অনুষ্ঠানে আপনাকে দেখা যেত, এখন সেখানে কালেভদ্রে উপস্থিত হন; এমন পরিস্থিতির মানে হচ্ছে ডায়েটে আপনার শরীর থেকে শক্তি নিঃশেষিত হচ্ছে। যদিও মাঝে মাঝে এমন নিষ্ক্রিয় লাগার হাজারটা কারণ থাকে তবে, প্রথম অবস্থায় নিজের খাবার কৌশলের কারণে এমনটা হচ্ছে কিনা, সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে।

তীব্র ক্ষুধা অবজ্ঞা করা উচিত নয়

ধরুন ভীষণ ক্ষুধা লেগেছে, কিন্তু ডায়েটের দোহাই দিয়ে পেট চেপে আছেন। পাকস্থলীর গর্জনধ্বনিই কিন্তু বলে দেয় কখন আপনার শরীরে খাবার প্রয়োজন। পুষ্টিবিদরা বলেন, যখনই ক্ষুধা অনুভব হবে, তখনই কিছু খাওয়া ভালো। তবে তখন পর্যন্ত খাওয়া উচিত, যখন সামান্য সন্তুষ্ট হবে আপনার পাকস্থলী। তার মানে, ভরপেট না খেয়ে পাকস্থলীকে সামান্য সন্তুষ্টি দেয়ার পরই খাওয়া বন্ধ করুন।

স্বাভাবিকের চেয়ে বেশি তৃষ্ণার্ত

শরীরে প্রয়োজনীয় ক্যালরি ঘাটতি মানে একই সঙ্গে ক্যালসিয়াম, পটাশিয়াম, সোডিয়ামসহ আরো কিছু ইলেকট্রোলাইট উপাদনের ঘাটতিতে ভোগা। শরীরে ইলেকট্রোলাইটের ঘাটতি হলে বারবার তৃষ্ণার্ত হওয়ার মাধ্যমে শরীর তা জানিয়ে দেয়।

খেয়াল রাখুন আপনার ডায়েট অভ্যাস সপ্তাহে ২ পাউন্ডের বেশি ওজন কমিয়ে দিচ্ছে কিনা।
খেয়াল রাখুন আপনার ডায়েট অভ্যাস সপ্তাহে ২ পাউন্ডের বেশি ওজন কমিয়ে দিচ্ছে কিনা।

দিনে তিনবারের বেশি ক্ষুধা লাগা

বারবার ভীষণ ক্ষুধা লাগলে জেনে রাখুন শরীরকে প্রয়োজনীয় খাবার সরবরাহ করতে ব্যর্থ হচ্ছেন আপনি। এমন অবস্থায় মনোযোগ দিতে হবে দিনের খাদ্যতালিকার দিকে। অনেকে তিনবারে সারা দিনের খাবার খেয়ে থাকেন, আবার কেউ কেউ অল্প অল্প করে পাঁচ কিংবা সাতবারও খান। তবে কী ধরনের খাবার খাচ্ছেন, তার পুষ্টিমান যাচাই করে নিন।

সপ্তাহে কত পাউন্ড ওজন কমাচ্ছেন?

খেয়াল রাখুন আপনার ডায়েট অভ্যাস সপ্তাহে ২ পাউন্ডের বেশি ওজন কমিয়ে দিচ্ছে কিনা। দ্রুত হারে ওজন কমার মানে হচ্ছে পরবর্তীতে দ্রুত ওজন বাড়তে পারে। তাই সপ্তাহে ২ পাউন্ডের চেয়ে কম ওজন কমানোই আদর্শ।

সূত্রঃ প্রিভেনশনডটকম/ বণিকবার্তা

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here