নখ ভাঙা প্রতিরোধের দশটি উপায়

0
397

পার্টি আর দাওয়াতের আয়োজন যদি ঘরেই করতে চান তাহলে গৃহসজ্জা আর আপ্যায়নের পুরো ভারটিই পড়ে গৃহকর্ত্রীর উপর। থালা-বাসন ধোয়া, ঘর গুছানো হাজারটা ঝামেলার মধ্যে ঈদ উপলক্ষে বড় করে রাখা সাধের নখগুলোর যত্ন নেয়ার সময় কোথায়?

নখের যত্নকে উপেক্ষা করছেন তো? ফলাফল নিজেই দেখুন। অচিরেই ভাঙতে শুরু করবে সুন্দর শেপ করে রাখা বড় বড় নখগুলো।

নিশ্চয় ভাবছেন ভালো যন্ত্রণায় পড়ে গেলাম তো! এর থেকে বাঁচার উপায় কি? সেই উপায় বাতলে দিতেই তো আমাদের আজকের এই আয়োজন।

নখ ভাঙা প্রতিরোধের উপায় কিঃ

আপনার নখ আপনার চুলের মতোই কোমল, কাজেই এরও প্রয়োজন বাড়তি যত্নের। চলুন এক নজরে দেখে আসা যাক প্রতিরোধের দশটি উপায়।

  • ডিশ ধোয়ার ডিটারজেন্ট বা গরম পানি হাত ও নখের জন্য খুব ক্ষতিকর। কাজেই থালাবাসন ধোয়ার সময় হাতে গ্লোভস পরে নিন। সম্ভব হলে সারাদিন পানির কাজ না করে একবারেই সব কাজ শেষ করে ফেলুন। সারাদিনের জমে যাওয়া থালাবাসন বালতিতে ভিজিয়ে রাখুন। এতে খাবারের কণাগুলো দ্রুত ধুয়ে যাবে আর আপনা ঝামেলাও কমে যাবে।
  • বেশি করে প্রোটিন সমৃদ্ধ খাবার খাবেন। চুল এবং নখ উভয়ই প্রোটিন থেকে তৈরি হয়। কাজেই শাকসবজি, সয়া, ফল এসবের পাশাপাশি মাছ, মাংসও খেতে হবে পরিমাণমতো।
  • সুন্দর ও স্বাস্থ্যকর নখের জন্য প্রয়োজন ফ্যাটি এসিড জাতীয় খাবারের। ডিম, দুধ, মাখন, সবজি এগুলোতে ফ্যাটি এসিডের পরিমাণ বেশি থাকে।
  • নখ যদি একবার ভেঙেই যায় তাহলে কিন্তু তা প্রতিকারের আর কোন উপায় থাকে না। তখন একটিই রাস্তা খোলা থাকে আর তা হল নখ কেটে ফেলা। নখ যদি কখনও ভেঙে যায় তবে যত দ্রুত সম্ভব তা কেটে ফেলতে হবে, নাহলে নখ আরও ভাঙতেই থাকবে। এজন্য অনেকেই ব্যাগে গ্লু লাগানো একটি কাগজ রাখেন। নখ ভেঙে গেলে যদি তা তাৎক্ষনিকভাবে মেরামত করা সম্ভব না হয় তবে কাগজটি নখের উপর লাগিয়ে দিয়েও সাময়িকভাবে নখের সুরক্ষা করা যাবে।
  • মেনিকিউরের দিকে বিশেষভাবে নজর দিন। অনেকেই নেইল পলিশ যখন উঠে আসা শুরু করে তখন অন্য হাতের নখ দিয়ে খুঁটিয়ে তা তুলে ফেলার চেষ্টা করেন। এতে দুই হাতের নখই ক্ষতিগ্রস্ত হয়। নিয়ম মেনে, ভালো মানের নেইল পলিশ রিমুভার ব্যবহার করে নেইল পলিশ তুলতে হবে। এছাড়া নকল নখ পরার অভ্যাস ত্যাগ করাই ভালো। নখের সাথে যে গ্লু ব্যবহার করা হয় তা আপনার নখের জন্য হানিকারক।NEW YORK, NY - SEPTEMBER 07:  A model poses wearing JINsoon Nail Lacquer during JINsoon For Tibi Spring/Summer 2014 at Pier 59 on September 7, 2013 in New York City.  (Photo by Anna Webber/Getty Images for JINsoon)
  • আপনার নখ কোন ওপেনার নয়, স্ক্রু ড্রাইভারও নয়। কাজেই হাতের কাছে কিছু না পেলে নখকেই ওপেনার হিসেবে ব্যবহার করা বন্ধ করুন। এতে নখ খুব ক্ষতিগ্রস্ত হয়। টিন জাতীয় কিছু খুলতে চামচ ব্যবহার করুন, আর আজকাল কোকের ওপেনার সব দোকানেই পাওয়া যায়। কাজেই নখের উপরে কোন অত্যাচার নয়।
  • মেয়েদের একটি সাধারণ অভ্যাস হল ঘণ্টাব্যাপী গোসল করা। কিন্তু এতক্ষন ধরে পানির নিচে থেকে আপনার নখ যে ভিজে নরম হয়ে যাচ্ছে, তার কি হবে? সপ্তাহে একদিন ঘরোয়া পদ্ধতিতে নখ ভিজিয়ে রাখতেই পারেন কিন্তু প্রতিদিন এভাবে নখ ভেজালে নখের ক্ষতি হয়।
  • এবার সাপ্তাহিক কিছু যত্নের কথা না বললেই নয়। লবন এবং অলিভ অয়েল একসাথে মিশিয়ে তাতে হাত ভিজিয়ে রাখুন ১০ মিনিট ধরে। এবার ভালো করে ঘষে নখের নেইল পলিশ ও আঙুলের মরা কোষগুলো তুলে ফেলুন। সুন্দর করে নখ ফাইল করে ফেলুন যাতে নখের কোথাও কোন আঁকাবাঁকা অংশ না থাকে। উষ্ণ গরম পানিতে মিনিট পাঁচেক হাত ভিজিয়ে রাখুন। তারপর হাত ও নখে ভালো করে ময়েশ্চারাইজিং ক্রিম ম্যাসেজ করে ফেলুন। নখ অনেক বেশি উজ্জ্বল ও স্বাস্থ্যকর হবে এতে।
  • ঘরোয়া পদ্ধতিতে নখের যত্ন নেয়ার সবচেয়ে জনপ্রিয় উপায় হল লেবুর রসের সাথে চিনি, ভিনেগার, ক্যাস্টর অয়েল, বাদামের তেল, মধু, ডিমের সাদা অংশ ও সোডিয়াম বাই কার্বোনেট মিশিয়ে একটি প্যাক তৈরি করে নখে লাগাতে হবে। প্যাকটি মিনিট দশেক রেখে উষ্ণ গরম পানিতে হাত ধুয়ে ফেলতে হবে।
  • নখ সংক্রান্ত যেকোনো সমস্যার সমাধানে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ কথাটি হল কোন অবস্থাতেই দাঁত দিয়ে নখ কামড়ানো যাবে না। মনে রাখতে হবে নখের সবচেয়ে বড় শত্রু দাঁত। কাজেই দুজনকে যথাসম্ভব দূরে রাখাই ভালো।

নখের যত্নকে অবহেলা না করে যথাযথ গুরুত্ব দিন। ভাঙা নখের আঁচড়ে আপনি বা আপনার পরিবারের যেকোনো সদস্য আহত হতে পারেন। কি দরকার অহেতুক ঝুঁকি নেয়ার? তারচেয়ে নিয়মমাফিক পরিচর্যায় নখকে করে তুলুন স্বাস্থ্যকর।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here