নিজেই জানুন, গর্ভের সন্তানটি ছেলে না মেয়ে

নিজেই জানুন, গর্ভের সন্তানটি ছেলে না মেয়ে
আপনার গর্ভেও আছে এমন ফুটফুটে কেউ!

আর্টস্টাইল কিউরেটর  

গর্ভের শিশুটি ছেলে না মেয়ে! এ বিষয়ে মা-বাবারও প্রবল আগ্রহ থাকে। তবে ২০ সপ্তাহের আগে শিশুটি ছেলে না মেয়ে সে সম্পর্কে চিকিৎসকেরাও নিশ্চিত হতে পারেন না। অনেক মা-বাবাই আলট্রাসনোগ্রাম না করেই তাদের অনাগত সন্তানের লিঙ্গ সম্পর্কে জানতে পারেন। কীভাবে এটা সম্ভব! কৌতুহল ধরে না রাখতে পারলে আপনারাও জেনে নিন।

নিচে গর্ভে থাকা সন্তানের লিঙ্গ পরিচয় জানার ৭টি পদ্ধতির বিস্তারিত রইল।

খাবারের প্রতি আপনার আকর্ষণ 
বেশিরভাগ মহিলাই গর্ভাবস্থায় হরমোন ভারসাম্যহীনতায় ভোগেন। ফলে তাদের মাঝে নানা খাবার খাওয়ার প্রবণতা দেখা যায়। খাদ্য গ্রহনের এসব গর্ভস্থ শিশুর লিঙ্গ নির্ধারণ করে দিতে পারে। আপনার যদি মিষ্টি বা চিনিযুক্ত খাবার খেতে ইচ্ছা হয়, বুঝবেন মেয়ে হবে আর যদি নিমকি অথবা মসলাদার খাবার খাওয়ার ইচ্ছা দেখা যায়, তাহলে ছেলেই হবে।

পেটের সমস্যা  
সমীক্ষায় দেখা গেছে, গর্ভাবস্থায় কারো কারো সকালে হালকা বমি বা অন্য কোনও সমস্যা দেখা যায় না। এমন মায়েদের ক্ষেত্রে ছেলে হওয়ার সম্ভবনাই বেশি।  আর শিশুটি মেয়ে হলে পেটে ব্যথার সৃষ্টি হবে এবং সকালে শারীরিক অসুস্থতা দেখা দেবে।

পেটের অবস্থান 
গর্ভাবস্থায় পেট বেশি ভারী মনে হলে, মেয়ে শিশু হবে। আর যদি ভার কম অনুভূত হয় তাহলে ছেলে হবে। শিশুটি যদি পেটের ডানদিকে আছে বলে মনে হয়, তাহলে মেয়ে হবে। আর যদি সমস্ত পেট জুড়ে বা বামদিকে অনুভূত হয় তাহলে ছেলে হবে।

হার্টবিট রেট
নিয়মিত শাররিরীক পরীক্ষার সময় ডাক্তার যখন গর্ভস্থ শিশুর হৃদস্পন্দন পরীক্ষা করেন তখন লক্ষ্য করে  হৃদস্পন্দনের রেট দেখুন। হৃদস্পন্দন যদি 140 BPM এর বেশি অথবা সমান হয়, তাহলে শিশুটি মেয়ে। আর যদি হৃদস্পন্দনের রেট 140 BPM এর কম হয়, তাহলে গর্ভস্থ শিশুটি ছেলে হবে।

ব্রেকআউট
গর্ভাবস্থায় মায়ের ত্বকে কি ব্রণ বা অন্য কোন সমস্যা হচ্ছে, যা আপনার সৌন্দর্য নষ্ট করছে? তাহলে অবশ্যই আপনার মেয়ে হবে। আগের দিনের মানুষ বলত, মেয়ে শিশুরা মায়ের সৌন্দর্য চুরি করে, তাই মায়ের চেহারার সৌন্দর্য নষ্ট হয়।

রিং টেস্ট
একটা আংটি নিয়ে সুতার সাথে বেঁধে নিন। তারপর বিছানায় শুয়ে আপনার পেটের উপর আংটিটি ঝুলিয়ে দিন। এবার আংটিটির গতিবিধি পর্যবেক্ষণ করুন। যদি আংটিটি মাথা ও পায়ের দিক বরাবর দুলতে থাকে, বুঝবেন মেয়ে হবে। যদি রিংটি গোল গোল ঘুরতে থাকে তবে ছেলে।   এটা সত্যি নাও হতে পারে।

শিশুদের উপদেশ নিন
গর্ভাবস্থায় অনেক সময় অনেকে পেটে কান পেতে শিশুটিকে অনুভব করতে চান। অনেক শিশু আছে, যারা পেটে কান রেখে অনাগত শিশুর সঙ্গে কথা বলতে চায়। সেক্ষেত্রে লক্ষ্য রাখুন, যদি কোনো ছেলে শিশু আপনার পেটে কান লাগিয়ে বারবার শিশুটিকে অনুভব করতে চায়, তাহলে মেয়ে হবে। আর যদি কোন মেয়ে শিশু এ কাজটি করে, তবে ছেলে শিশু হবে।

এই বিষয়গুলো লক্ষ্য করলে চিকিৎসকের পরামর্শ পাবার আগেই বুঝতে পারবেন, ছেলে না মেয়ে, পরিবারের জুনিয়র হয়ে কে আসছে।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here