নিজেকে স্মার্ট করতে যা যা করবেন

নিজেকে স্মার্ট করতে যা যা করবেন
নিজের বুদ্ধিমত্তাকে তীক্ষ্ণ করুন। মস্তিস্ককের সক্রিয়তা বাড়ান। এভাবে ধীরে ধীরে আপনি লক্ষে পৌছে যাবেন।

সুরুজ আহমেদ  

লোকে বলেন, স্মার্টনেসই ভদ্রতা। স্থান, সময় ও বিষয় বুঝে নিজেকে সঠিকভাবে উপস্থাপন করাই স্মার্টনেস। কোনো মানুষই স্মার্ট হয়ে জন্মান না। স্মার্ট হওয়ার জন্য নিজেকে প্রস্তুত করতে হয়। সময়ের সাথে সাথে নিজের মধ্যে পরিবর্তন আনতে হয়। কথায় আছে, ভদ্রতা পোশাকে নয়, ব্যবহারে। আপনি কতটুকু স্মার্ট, আচার-আচরণই তা বলে দিবে। স্মার্টনেসই আপনার মধ্যে সতন্ত্র বৈশিষ্ট্য গড়ে তুলবে। আপনানাকে ব্যক্তিত্বসম্পন্ন করবে। তাই নিজেকে স্মার্ট করার কিছু কায়দা-কানুন জেনে নিন।

স্মার্ট হওয়ার জন্য
প্রথমেই আপনাকে গুছিয়ে কথা বলা শিখতে হবে। উপস্থিত বুদ্ধি, পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা দিয়ে যে কোনো পরিস্থিতিতে নিজেকে মানিয়ে নেওয়া শিখুন। নিজের আশপাশ সম্পর্কে সঠিক ধারণা রাখুন। এটাও  স্মার্টনেসের অংশ।

জ্ঞানের পরিধি বাড়ানো
জ্ঞান আপনাকে দৃঢ় আত্নবিশ্বাসী করে তুলবে। এটা এমন নয় যে, সারাদিন শুধু বই নিয়েই বসে থাকবেন। কোথায় কী বলতে হবে, কীভাবে চলতে হবে- এ সবই জ্ঞান। এ জ্ঞানের প্রয়োগই আপনাকে স্মার্ট হতে সাহায্য করবে।

নতুন কিছুর সাথে পরিচিত হন
প্রতিদিন একটু একটু করে নতুন কিছু শিখুন। নতুন বিষয়ের সঙ্গে পরিচিত হউন। যা-ই শিখুন, মন থেকে শিখুন, ব্যবহারিক জীবনে প্রয়োগ করুন।

মস্তিস্ক তীক্ষ্ণ করুন
নিজের বুদ্ধিমত্তাকে তীক্ষ্ণ করুন। মস্তিস্ককের সক্রিয়তা বাড়ান। এভাবে ধীরে ধীরে আপনি লক্ষে পৌছে যাবেন।

শখ সৃষ্টি করুন
ইচ্ছা শক্তিকে জাগিয়ে তুলুন। শখগুলোকে কাজে লাগান। এটা আপনার আত্নবিশ্বাস বাড়াবে। পৃথিবীতে সব আত্নবিশ্বাসী মানুষই স্মার্ট।

নিয়ম মেনে খাবার খান
খাবার খাওয়ায় নিয়মিত হউন। নিয়ম মেনে খাবার খেলে শরীর মন ও মস্তিস্ক ভালো থাকবে। শরীর সুস্থ থাকলে আত্নবিশ্বাস ও স্মার্টনেস বাড়ে। স্মৃতিশক্তি বাড়াতে সাহায্য করে এমন খাবার খাওয়ার চেষ্টা করুন।

পজিটিভ চিন্তা করুন
পজিটিভ চিন্তা ভাবনাও স্মার্টনেসের অংশ। নেগেটিভ চিন্তা-ভাবনা বাদ দিন। কারো সম্পর্কে নেগেটিভ আলোচনা করা থেকে বিরত থাকুন। নেগেটিভ আলোচনা স্মার্টনেস কমিয়ে দেয়। তাই সব সময় পজিটিভ থাকুন।

নেশা জাতীয় দ্রব্য ছাড়ুন
অনেকেই মনে করেন, ধুমপান করা স্মার্টনেসের অংশ। কেউ কেউ এটার মাধ্যমে নিজেকে স্মার্ট প্রমান করতে চান। এতে আসলে আত্নবিশ্বাসে চিড় ধরে। তাই আত্নবিশ্বাসী হওয়ার জন্য সব ধরণের মাদকই ত্যাগ করুন।

ব্যক্তিত্ব ধরে রাখুন
ব্যক্তিত্বই আপনাকে আকর্ষণীয় করে তুলবে। কারও সঙ্গে কথা বলার সময় আত্নবিশ্বাস ধরে রাখবেন। অন্যকেও কথা বলার সুযোগ দিন।

মেজাজ ঠাণ্ডা রাখুন
কথায় আছে, রেগে গেলেন তো হেরে গেলেন। তাই রাগের বিষয়েও মেজাজ ঠান্ডা রাখুন। উত্তর দেওয়ার বেলায় সতর্ক থাকুন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here