ফ্যামিলি ফটো ৫০০ সদস্যের!

সারা দেশে ছড়িয়ে থাকা বংশধরদের তাদের মূল সম্পর্কে অবহিত করা।

ফ্যামিলি ফটো বলে কথা! পরিবারের সব সদস্য না থাকলে কী হয়! আর পরিবারটি যদি হয় ৫০০ সদস্যের? তবে কী আর করার, ৫০০ জনকে নিয়েই তুলতে হবে ছবি।

এমনই ঘটনা ঘটিয়েছে চীনের পূর্বঞ্চলীয় প্রদেশ ঝেজিয়াংয়ের শিশে গ্রামের রেন পরিবার। পারিবারিক পুনর্মিলনীতে জড়ো হয়েছিল সবাই। এতে সদস্য সংখ্যা গিয়ে দাঁড়ায় ৫০০ জনে।

বিবিসি জানিয়েছে, গত সপ্তাহে চন্দ্র নববর্ষ উদযাপন উপলক্ষে ছবিটি তোলা হয়েছে। এই উৎসবটিতে সাধারণত চীনের বড় বড় পরিবারগুলো একত্রিত হয়ে একসঙ্গে খাবার দাবারের আয়োজন করে।

বিশাল পরিবারের ওই পারিবারিক ছবিটি একটি ড্রোনের মাধ্যমে তুলেছেন আলোকচিত্রী ঝাং লিয়াংজং। একটি আগ্নেয়শিলার পাশে দাঁড়িয়ে এটি তোলা হয়েছে।

বেইজিং, শাংহাই, জিনজিংয়াং এবং তাইওয়ানে ছড়িয়ে থাকা পরিবারের সদস্যরা এতে যোগ দিয়েছেন।
বেইজিং, শাংহাই, জিনজিংয়াং এবং তাইওয়ানে ছড়িয়ে থাকা পরিবারের সদস্যরা এতে যোগ দিয়েছেন।

ঝাং জানান, শিশে গ্রামের রেন পরিবারটি প্রায় ৮৫১ বছরের পুরনো। কিন্তু গত ৮ দশক ধরে তারা তাদের বংশনামাটি ধরে রাখতে পারেনি।তিনি বলেন, সম্প্রতি তাদের বয়োজ্যেষ্ঠরা বংশনামা হালনাগাদ শুরু করলে দেখা যায় গত সাত প্রজন্ম ধরে তাদের বংশধরের সংখ্যা বেড়েছে কমপক্ষে ৭ হাজার। বংশনামা প্রস্তুতের কাজ শেষ হলে তারা একটি পারিবারিক পুনর্মিলনী করার সিদ্ধান্ত নেন, যেখানে ৫ শতাধিক সদস্য উপস্থিত হয়েছিল।

বেইজিং, শাংহাই, জিনজিংয়াং এবং তাইওয়ানে ছড়িয়ে থাকা পরিবারের সদস্যরা এতে যোগ দিয়েছেন। গ্রামপ্রধান রেন তুয়ানিজে বলেন, ‘এর একটি কারণ ছিল, আমাদের পরিবারের সদস্যরা কোথায় ছড়িয়ে রয়েছে, কোথায় মারা গেছে এবং কোথায় বসবাস করছে তা জানতে পারা। আরেকটি কারণ ছিল, সারা দেশে ছড়িয়ে থাকা বংশধরদের তাদের মূল সম্পর্কে অবহিত করা।’

চীনে বড় বড় পরিবারগুলোর পারিবারিক ছবি তোলার ঘটনা খুবই সাধারণ। তবে এই ছবিটি গণমাধ্যমে এবং সামাজিক মাধ্যমে ব্যাপক আলোচনার সৃষ্টি করেছে। অনেকে কৌতুক করে লিখেছেন- ‘পরিবারটির ছোট সদস্যরা নববর্ষের বোনাস নিতেই তাদের পূর্বসূরীদের কাছে এসেছে।’

সূত্র: বিবিসি / বণিক বার্তা

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here