বাড়িতেই বানিয়ে নিন ডিটারজেন্ট জামা কাপড় ভাল রাখতে!

বাড়িতেই বানিয়ে নিন ডিটারজেন্ট জামা কাপড় ভাল রাখতে!

গরম কাল মানেই ঘামের সমস্যা। সুস্থ থাকতে এই সময় সবচেয়ে জরুরি নিজেকে পরিষ্কার, পরিচ্ছন্ন রাখা। প্রতি দিন জামাকাপড় কাচা এই সময় হাইজিনের প্রথম ধাপ। কিন্তু বাজারচলতি ডিটারজেন্ট অতিরিক্ত ব্যবহারের ফলে জামাকাপড়ের যেমন ক্ষতি হয়, তেমনই ক্ষতি হয় হাতেরও। আবার এ সময় নকল প্রসাধনসামগ্রী প্রস্তুতকারক প্রতিষ্ঠান বিভিন্ন জনপ্রিয় কোম্পানির নামে নকল ডিটারজেন্ট তৈরী করছে, যা আপনার জামাকাপড় ও হাতের ক্ষতি করছে। তাই কেনা ডিটারজেন্টের বদলে বাড়িতেই বানিয়ে নিন ডিটারজেন্ট।

কী কী লাগবে

*বেকিং সোডা: ১৬ কাপ

*ওয়াশিং সোডা: ১২ কাপ

*লিক্যুইড ক্যাসটাইল বা গ্লিসারিন সোপ: ৮ কাপ

*টি ট্রি অথবা ল্যাভেন্ডার অথবা লেমন এসেনশিয়াল অয়েল: ৩ টেবল-চামচ

এক বালতি পানিতে ১/৪ কাপ এই হোমমেড লন্ড্রি ডিটারজেন্ট দিন।
এক বালতি পানিতে ১/৪ কাপ এই হোমমেড লন্ড্রি ডিটারজেন্ট দিন।

কী ভাবে বানাবেন

একটা বড় বাটিতে বেকিং সোডা, ওয়াশিং সোডা ও লিক্যুইড সোপ মিশিয়ে নিন। সব শেষে এসেনশিয়াল অয়েল মিশিয়ে বোতলে ভরে রেখে দিন।  এক বার বানিয়ে রাখলে চার জনের পরিবারে এক বছর পর্যন্ত ব্যবহার করতে পারবেন এই হোমমেড ডিটারজেন্ট।

এক বালতি পানিতে ১/৪ কাপ এই হোমমেড লন্ড্রি ডিটারজেন্ট দিন। আগে বস্ত্রাদির বিশেষ দাগযুক্ত অংশ তুলে নিন। তারপর  ডিটারজেন্ট পাউডার মিশ্রিত পানিতে ভিজায়ে রাখুন। পশমী বস্ত্র বা পোশাক এবং মূল্যবান বস্ত্রাদি ধোওয়ার জন্য গরম পানি ব্যবহার করা সঙ্গত না। লিনোলিয়াম, কাঠের খোদাই করা কারুকায এবং চিত্রিত দেয়াল পরিষ্কার করার জন্যও এই ডিটারজেন্ট পাউডারটি ব্যবহার করা যেতে পারে।

বেকিং সোডা ও ওয়াশিং সোডা জামা কাপড় জীবাণুমুক্ত করে স্যানিটাইজ করতে সাহায্য করে।
ক্যাসটাইল সোপ কাচার সময় ফেনা হতে সাহায্য করবে। শুধু জামা কাপড় নয়, বাড়ির মেঝেও এই সোপ দারুণ ভাবে পরিষ্কার করে।
এসেনশিয়াল অয়েল ধোওয়ার পর জামা, কাপড়ে সুন্দর গন্ধ রেখে যায়।

সূত্রঃ আনন্দবাজার পত্রিকা

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here