ব্লেমিশ বা ত্বকের বর্ণ ভারসাম্যহীনতায় ভুগছেন? দেখে নিন ৫টি ঝটপট সমাধান

0
668
বাজারের ক্যামিকেলের উপর ভরসা না করে ঘরে বসে ব্লেমিশ দূর করা সম্ভব

ত্বকের সমস্যা নিয়ে চিন্তিত নন এমন মানুষ খুঁজে পাওয়া দুষ্কর। আর ত্বক এমনই একটি সংবেদনশীল বিষয় যে সারাক্ষণ এই ব্যাপারে আপনাকে সতর্কতা অবলম্বন করতে হয়।

একটু খেয়াল করে দেখুন তো আপনার স্বাভাবিক গায়ের রঙের সাথে অসামাঞ্জস্যতাপূর্ণ বিভিন্ন দাগ দেখতে পাচ্ছেন কোথাও কোথাও? গালের দু পাশের চোয়ালে কালো ছোপ ছোপ দাগ পড়েছে? কিংবা নাকের রঙ, ঘাড় বা গলার রঙ শরীরের বাকি অংশের চেয়ে ডার্ক মনে হচ্ছে কি? তাহলে আপনি ব্লেমিশ জাতীয় সমস্যায় ভুগছেন।

প্রধানত ব্রনের জন্য মুখের ত্বকের বিভিন্ন অংশে রঙের পার্থক্য দেখা যায়। এছাড়া হরমোনের ভারসাম্যহীনতা, জেনেটিক্যাল সমস্যা, ত্বকের যত্নে অনিয়ম, বার্ধক্যজনিত সমস্যা বা সূর্যের আলোর প্রভাবেও ত্বকে ব্লেমিশ বা রঙের অসামাঞ্জস্যতা দেখা দিতে পারে।

বাজারের ক্যামিকেলের উপর ভরসা না করে ঘরে বসে কিভাবে ব্লেমিশ দূর করা সম্ভব তাই নিয়ে আমাদের আজকের আর্টিকেল।

লেবুর রসে দূর করুন ব্লেমিশঃ

  • লেবু স্লাইস করে ২ টুকরো লেবুর রস সরাসরি মুখে লাগিয়ে নিতে পারেন। ১৫ থেকে ২০ মিনিট রেখেঅনেক করে পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। প্রতিদিন একবার করে মাসখানি এই পদ্ধতিটি প্রয়োগ করলে ভালো ফল পাবেন।
  • এক চা চামচের ৩ ভাগের ১ ভাগ লেবুর রসের সাথে সম পরিমাণ মধু মিশিয়ে নিন। ত্বকের ব্লেমিশ অংশে এই মিশ্রণটি ঘষে ঘষে লাগান এবং ১৫ থেকে ২০ মিনিট অপেক্ষা করুন। সপ্তাহে ৩-৪ দিন এই প্যাকটি ব্যবহার করতে পারেন।
  • অথবা সমপরিমাণ লেবুর রস ও টমেটোর রস মিশিয়ে নিতে পারেন। চাইলে এর সাথে ১ টেবিল চামচ ওটমিল যোগ করতে পারেন। আক্রান্ত স্থানে এই মিশ্রণটি ব্যবহার করুন। প্রতিদিন একবার করে এই মিশ্রণটি ব্যবহার করতে পারেন।
সুস্থ্য ও সুন্দর ত্বকের জন্য দৈনন্দিন খাদ্য তালিকায় যোগ করতে পারেন টমেটো
সুস্থ্য ও সুন্দর ত্বকের জন্য দৈনন্দিন খাদ্য তালিকায় যোগ করতে পারেন টমেটো

টমেটোর রসে মিলবে সমাধানঃ

  • টমেটো কেটে রস বের করে নিন।
  • পুরো মুখে বা আক্রান্ত স্থানের বেশ কিছুটা জায়গা জুড়ে টমেটোর রস ম্যাসেজ করে নিন।
  • ১০-১৫ মিনিট অপেক্ষা করে ঠাণ্ডা পানি দিয়ে জায়গাটি ধুয়ে ফেলুন।
  • এই সহজ উপায়টি নিয়মিত কয়েক সপ্তাহ ব্যবহার করুন।

সুস্থ্য ও সুন্দর ত্বকের জন্য দৈনন্দিন খাদ্য তালিকায় যোগ করতে পারেন টমেটো।

 

উপকার পেতে পারেন আলুর রসেঃ

  • একটি ছোট আলুর খোসা ছাড়িয়ে আলুটি কেটে নিন।
  • লেবুর রস বা এ ধরণের ফলের রস চিপে বের করার জন্য মেশিন পাওয়া যায়। এই মেশিন দিয়ে চেপে আলুর রস বের করে নিন।
  • একটি তুলার বল আলুর রসে চুবিয়ে ত্বকের ব্লেমিশ অংশে লাগিয়ে নিন।
  • ১৫-২০ মিনিট অপেক্ষা করে ধুয়ে ফেলুন।
  • প্রতিদিন এক থেকে দুইবার করে এই পদ্ধতিটি প্রয়োগ করতে পারেন।

মুলতানি মাটি হতে পারে ভেষজ সমাধানঃ

  • সমপরিমাণ গোলাপ জল, শসার রস, লেবুর রস বা পানির সাথে দুই টেবিল চামচ মুলতানি মাটি মিশিয়ে একটি ঘন পেস্ট তৈরি করুন। মুখে বা ত্বকের ব্লেমিশ অংশে লাগিয়ে ১৫ থেকে ২০ মিনিট রেখে দিন। এবার পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।
  • ২ চা চামচ মুলতানি মাটির সাথে এক চা চামচ টমেটোর রস এবগ এক চা চামচ চন্দনের গুড়ো মিশিয়ে পেস্ট বানিয়ে নিন। ত্বকের সব জায়গায় সমানভাবে এই প্যাকটি লাগিয়ে নিন। ২০ মিনিট অপেক্ষা করে ধুয়ে ফেলুন।
  • উপরের এই পদ্ধতিগুলো সপ্তাহে ২ থেকে ৩ দিন করে প্রয়োগ করতে পারেন।
সমাধান করে ফেলুন ব্লেমিশ সমস্যা আর ইভেন টোনের সাথে রাঙিয়ে নিন নিজেকে।
সমাধান করে ফেলুন ব্লেমিশ সমস্যা আর ইভেন টোনের সাথে রাঙিয়ে নিন নিজেকে।

 বেছে নিন অ্যালোভেরার জেলঃ

  • অ্যালোভেরা থেকে রস বা জেল বের করে সরাসরি ত্বের ব্লেমিশ অংশে লাগিয়ে নিন। শুকিয়ে না যাওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করুন। ঠাণ্ডা পানি দিয়ে ত্বক ধুয়ে ফেলুন। প্রতিদিন এক থেকে দুইবার করে ব্যবহার করতে পারেন এই জেল।
  • চাইলে ঘরে বসে ২ টেবিল চামচ অ্যালোভেরা জেলের সাথে এক চা চামচ লেবুর রস ও চিনি মিশিয়ে প্যাক তৈরি করে নিতে পারেন। আস্তে আস্তে ত্বকে এই প্যাকটি ঘষে লাগান। ১৫ মিনিট অপেক্ষা করে ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে ২-৩ বার এই প্যাকটি ব্যবহার করে ব্লেমিশ সংক্রান্ত সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়া যাবে।

কাজেই ত্বকের বর্ণ নিয়ে আর চিন্তা নেই। এখনই সমাধান করে ফেলুন ব্লেমিশ সমস্যা আর ইভেন টোনের সাথে রাঙিয়ে নিন নিজেকে।

তথ্যসুত্রঃ টপ টেন রেমেডিস

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here