বয়স্কদের স্মরণশক্তির সমস্যা লাঘব হয় ব্যায়ামে

নিয়মিত ব্যায়ামে শুধু শারীরিক নয়, মানসিক স্বাস্থ্যেরও যে উন্নতি ঘটে, তা প্রতিষ্ঠিত সত্য। ফলে দূরে থাকে অ্যালঝেইমার ও স্মৃতিবৈকল্যের মতো মস্তিষ্কের রোগ। একই সঙ্গে হূদরোগ, স্ট্রোক, উচ্চরক্তচাপ, ডায়াবেটিস, স্থূলতা ও বিষণ্নতার ঝুঁকি কমানোয়ও এর কার্যকারিতা প্রমাণিত। প্রতিদিনের রুটিনে ব্যায়াম অন্তর্ভুক্তির পক্ষে সম্প্রতি আরো একটি যুক্তিযুক্ত করেছেন বিশেষজ্ঞরা। কানাডার ভ্যাঙ্কুভারভিত্তিক ইউনিভার্সিটি অব ব্রিটিশ কলাম্বিয়ার গবেষকরা প্রমাণ করেছেন, বৃদ্ধ বয়সে যারা স্মৃতিবৈকল্য ও চিন্তাভাবনার ক্ষমতা নিয়ে ভোগেন, নিয়মিত ব্যায়াম তাদের সমস্যা লাঘবে কার্যকর ভূমিকা রাখতে পারে। খবর হেলথ নিউজ লাইন।

অনলাইনভিত্তিক চিকিৎসা জার্নাল ‘নিউরোলজি’তে প্রকাশিত গবেষণায় উঠে আসে, নিয়মিত ব্যায়াম করলে মস্তিষ্কের হিপোক্যাম্পাস অঞ্চলের আকৃতি বাড়ে। ফলে অনেকাংশেই উপশম হয় স্মৃতিবৈকল্যের মতো মস্তিষ্কের ব্যাধি।

প্রসঙ্গত, মস্তিষ্কের হিপোক্যাম্পাস অঞ্চলটি প্রধানত শাব্দিক স্মৃতি গঠন, স্মৃতি গোছানো ও সংরক্ষণের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট।

এ বিষয়ে ইউনিভার্সিটি অব ব্রিটিশ কলাম্বিয়ার সহযোগী অধ্যাপক ও গবেষক দলের প্রধান তেরেসা লিউ অ্যামব্রোস বলেন, ‘নিয়মিত ব্যায়াম যে মস্তিষ্কে সহজে রোগব্যারাম দানা বেঁধে উঠতে দেয় না, বিভিন্ন গবেষণায় তা আগেই প্রমাণ হয়েছে। কিন্তু যারা এরই মধ্যে এসব সমস্যায় ভুগছেন, তাদের ওপর ব্যায়ামের প্রভাব নিয়ে এখন পর্যন্ত কোনো গবেষণাই হয়নি।’

গবেষণার জন্য লিউ অ্যামব্রোস ও তার সহযোগীরা সামান্য স্মৃতিবৈকল্যে ভোগা ৭০ জন ব্যক্তিকে পর্যবেক্ষণের আওতায় রাখেন, যাদের গড় বয়স ৭৪।

501875520-grandson-grandpa-holding-hands-harmony

পর্যবেক্ষণের আওতায় থাকা ব্যক্তিদের দুটি দলে ভাগ করা হয়। এদের মধ্যে অর্ধেক সংখ্যককে ছয় মাস ধরে সপ্তাহে তিনবার ১ ঘণ্টা করে ব্যায়াম করতে বলা হয়। বাকি অর্ধেককে স্মৃতিবৈকল্যের সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ স্বাস্থ্যসম্মত খাদ্যতালিকা অনুসরণ করতে দেয়া হয়। মস্তিষ্কের রোগব্যাধি বিষয়ে ব্যায়ামের সম্ভাব্য কার্যকারিতা প্রসঙ্গে এদের কোনো কিছু জানানো হয়নি।

পর্যবেক্ষণের আওতায় থাকা বৃদ্ধদের বেশ কয়েকবার চিন্তনক্ষমতা ও পরিকল্পনা এবং সাংগঠনিক সক্ষমতা পরীক্ষা করে দেখা হয়। এর জন্য প্রতিবারই তাদের ১ থেকে ১১ পর্যন্ত স্কেলে স্কোরিং করা হয়।

দেখা গেছে, এসব বৃদ্ধের মধ্যে যারা নিয়মিত ব্যায়াম করেছেন, পরীক্ষায় তাদের স্কোর বেড়েছে ১ দশমিক ৭ পর্যন্ত। এ বিষয়ে লিউ অ্যামব্রোস বলেন, আমরা দেখেছি, সামান্য স্মৃতিবৈকল্যে ভোগা যেসব বৃদ্ধ সপ্তাহে তিনবার দ্রুত হাঁটার মতো শ্বাস-প্রশ্বাসে মোটামুটি প্রভাব সৃষ্টিকারী ব্যায়াম করেছেন, তাদের স্মৃতিশক্তিতে উল্লেখযোগ্য রকমের উন্নতি দেখা গেছে।

তবে লিউ এও বলেন, ‘গবেষণাটির পুনরাবৃত্তির মাধ্যমে আমাদের পাওয়া ফল নিশ্চিত করা প্রয়োজন। কারণ নিয়মিত ব্যায়ামের সুফলগুলো সম্পর্কে আমরা সবাই জানি। আবার স্মৃতিবৈকল্যের চিকিৎসাও খুব একটা বেশি নেই। সেক্ষেত্রে সবচেয়ে সহজসাধ্য ও কম ব্যয়সাপেক্ষ চিকিৎসা হিসেবে স্মৃতিবৈকল্যের বিচক্ষণ সমাধান হতে পারে নিয়মিত ব্যায়াম।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here