মানুষ মানুষের জন্য জীবন জীবনের জন্য

কেউ স্ট্রোকে আক্রান্ত হয় তার মস্তিষ্ক কোষ ধীরে ধীরে প্রসারিত হয়। তখন তার ফার্স্ট এইড বা বিশ্রামের প্রয়োজন হয়।

অধ্যাপকরা বলছেন  যে কারো স্ট্রোক হচ্ছে যদি এমন দেখেন তাহলে আপনাকে নিন্মলিখিত পদ্ধতি অবলম্বন করতে হবে।

যখন কেউ স্ট্রোকে আক্রান্ত হয় তার  মস্তিষ্ক কোষ ধীরে ধীরে প্রসারিত হয়। তখন তার ফার্স্ট এইড বা বিশ্রামের প্রয়োজন হয়।

যদি দেখেন স্ট্রোকে আক্রান্ত ব্যক্তিকে  সরান যাচ্ছে না (কারণ মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণ হতে পারে) তখন ভাল হয়, যদি আপনার বাড়িতে পিচকারী সুঁই  বা সেলাই সুঁই থাকে। আপনি কয়েক সেকেন্ডের জন্য আগুনের শিখার উপরে সুঁইটি গরম করে নিবেন (যাতে করে জীবাণুমুক্ত হয়) তারপর স্ট্রোকে আক্রান্ত ব্যক্তির হাতের দশ আঙুলের ডগার নরম অংশে ছোট ছোট ক্ষত করে দিন। এমন ভাবে করুন যাতে প্রতি আঙুল থেকে রক্তক্ষরণ হয়। কোন অভিজ্ঞতা বা পূর্ববর্তী জ্ঞানের প্রয়োজন হবে না।

কেবলমাত্র  নিশ্চিত করুন স্ট্রোকে আক্রান্ত ব্যক্তির হাতের দশ আঙুল থেকে যথেষ্ট পরিমানে রক্তপাত হচ্ছে কিনা। এবার  দশ আঙুলের  রক্তপাত চলাকালীন কয়েক মিনিট অপেক্ষা করুন।দেখবেন রোগী ধীরে ধীরে সুস্থ হয়ে উঠেছে।

ব্যক্তির মুখ বিকৃত হয় তাহলে তার কানে ম্যাসেজ করুন।
ব্যক্তির মুখ বিকৃত হয় তাহলে তার কানে ম্যাসেজ করুন।

যদি স্ট্রোকে আক্রান্ত ব্যক্তির মুখ বিকৃত হয় তাহলে তার কানে ম্যাসেজ করুন। কান এমন ভাবে ম্যাসেজ করুন যাতে তার কান লাল হয়ে যায়।কান লাল হলে বুঝতে হবে কানে রক্ত পৌঁছেছে। তারপর প্রতিটি কান থেকে দু’ফোঁটা রক্ত বের করার জন্য কানের নরম জায়গায় সুঁই ফুটান। কয়েক মিনিট অপেক্ষা করুন দেখবেন মুখ বিকৃত হবেনা। আরও অন্যান্য উপসর্গ দেখা যায়। তবে  যতক্ষণ না রোগী মোটামুটি  স্বাভাবিক হয়, ততক্ষণ অপেক্ষা করুন। কিছুক্ষণ অপেক্ষা করেই যথাসম্ভব তাড়াতাড়ি হাসপাতালে ভর্তি করান।

জীবন বাঁচাতে রক্তক্ষয় পদ্ধতি চীনে প্রথাগত ভাবে চিকিৎ্সার অংশ হিসাবে ব্যবহার হয়ে আসছে। এই পদ্ধতি ১০০% কার্যকরী প্রমাণিত হয়েছে।

আপনার একটু সাহায্যে মানুষটি পাবে নতুন জীবন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here