শ্যাম্পু!শ্যাম্পু!

চুল নিস্তেজ, ফ্যাকাসে ও ঝরে যাওয়ার অন্যতম কারণ অতিরিক্ত শ্যাম্পু ব্যবহার। অথচ প্রকৃতি আমাদের জন্য রেখেছে সব সমাধানই।

শ্যাম্পু ছাড়া চুল পরিষ্কার? কীভাবে? সাবান তো ব্যবহার করা যাবেই না। যেহেতু দূষণ ও ধুলোবালি প্রচুর, তাই রোজ না হলেও একদিন পর পর চুল শ্যাম্পু না করলেই নয়। তবে চুল নিস্তেজ, ফ্যাকাসে ও ঝরে যাওয়ার অন্যতম কারণ অতিরিক্ত শ্যাম্পু ব্যবহার। অথচ প্রকৃতি আমাদের জন্য রেখেছে সব সমাধানই। মেহেদি, ডিম, ভিনেগারসহ রয়েছে আরো বিশেষ কিছু  উপাদান—

বেকিং পাউডার

চুলকে ভেতর থেকে পরিষ্কার করতে সক্ষম বেকিং পাউডার। এক চা চামচ বেকিং পাউডার এক কাপ পানিতে নেড়ে নিন। গোসলের সময় চুল ভিজিয়ে মিশ্রণটি চুলে লাগান। শ্যাম্পুর মতো ব্যবহার করে ধুয়ে নিন। তবে শ্যাম্পুর বদলে বিকল্প হিসেবে বেকিং পাউডার ১০ দিনে একবার ব্যবহার করুন। প্রায় প্রতিদিন এর ব্যবহার চুলে শ্যাম্পুর চেয়েও বেশি ক্ষতি এনে দিতে পারে।

ডিম

বাটিতে একটি ডিম ভালোভাবে ফেটে চুলে লাগিয়ে ম্যাসাজ করুন। কয়েক মিনিট রেখে পানি দিয়ে ধুয়ে নিন। ডিম চুলকে খুব ভালোভাবে পরিষ্কার করে। নরম ও সিল্কিভাব এনে দেয়। তবে চুলে ডিমের একটা গন্ধ থেকে যেতে পারে। এজন্য শেষ ধোয়ায় এক মগ পানিতে অর্ধেক লেবুর রস মিশিয়ে চুল ধুয়ে নিন।

মেহেদি

মেহেদিকে বলা যেতে পারে প্রাকৃতিক কালার বন্ডিং শ্যাম্পু। চুল পরিষ্কার করতে ও প্রাকৃতিক রঙের দীপ্তি পেতে মাসে একবার মেহেদি লাগান।  মেহেদি চুলে ডিপ ক্লিনজার হিসেবে কাজ করে। ১০ চা চামচ মেহেদি বাটার সঙ্গে একটু গরম পানি মেশান। সহনীয় মাত্রায় ঠাণ্ডা হলে চুলে লাগিয়ে ২ ঘণ্টা রাখুন। বেশি পরিমাণে পানি দিয়ে চুল ব্রাশ করে ধুয়ে নিন। মেহেদির প্রলেপ চুলকে তাত্ক্ষণিকভাবে উজ্জ্বল, পরিষ্কার ও ঝরঝরে করে তোলে।

k

লেবু

লেবুতে রয়েছে প্রাকৃতিক অ্যন্টি-ব্যাকটেরিয়াল উপাদান। এটি চুল পরিষ্কার করে। পাশাপাশি উজ্জ্বলতা বাড়ায়। প্রাকৃতিক ব্লিচ, তাই বলে চুলে প্রাকৃতিক ব্লন্ড কালারও এনে দিতে পারে। এক কাপ পানিতে পুরো একটি লেবু রস করে নিন। চুল ভিজিয়ে মিশ্রণটি দিয়ে ম্যাসাজ করে ধুয়ে নিন।

অ্যারারুট

তৈলাক্ত চুলের জন্য আদর্শ প্রাকৃতিক শ্যাম্পু। ১/৪ কাপ অ্যারারুট, এক কাপ গরম পানি ও ১/৪ কাপ ভিনেগার ও কয়েক ফোঁটা যেকোনো অ্যাসেনশিয়াল অয়েল দিয়ে পেস্ট বানান। চুলে লাগিয়ে ৫ মিনিট রেখে আলতো ম্যাসাজ করে প্রচুর পানি দিয়ে ধুয়ে নিন।

নারকেলের দুধ

১/৪ কাপ নারকেলের দুধ, ১/৩ কাপ মসুর ডাল বাটা ও অর্ধেক কমলার রস দিয়ে পেস্ট করে চুলে লাগান। ম্যাসাজ করে ধুয়ে নিন।

মসুর ডাল

মসুর ডাল প্রাকৃতিক পরিষ্কারক হিসেবে জনপ্রিয় একটি উপাদান। খুশকি দূর করে ও চুলের গোড়া শক্ত করে। চুলকে ভালোভাবে পরিষ্কার করতে মসুর ডাল বাটার সঙ্গে আলুর রস ও শসার রস মিশিয়ে চুলে লাগিয়ে আধঘণ্টা রাখুন। চুল ব্রাশ করে প্রচুর পানি দিয়ে ধুয়ে নিন। কন্ডিশনার হিসেবে এক মগ পানিতে কিছুটা ভিনেগার দিয়ে চুলে ঢেলে নিন।

ভিনেগার

ভিনেগার চুলে হারানো জেল্লা ফিরিয়ে আনে। ব্যাকটেরিয়ানাশক বলে চুলের গোড়া পরিষ্কার রাখে ও খুশকি হতে দেয় না। এজন্য চুলের গোড়ায় ভিনেগার লাগিয়ে ২০ মিনিট রাখুন। এর পর পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। সবচেয়ে ভালো ফল পাওয়া যাবে, যদি তা আপেল সাইডার ভিনেগার হয়।

লিখেছেনঃ সানজিদা শামরিন

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here