সকালে এবার ঘুম ভাঙবেই

সকালে এবার ঘুম ভাঙবেই
ঘুমানোর সময় আশপাশের শব্দ কমানোর চেষ্টা করুন। প্রয়োজনে জানালা বন্ধ করে ঘুমান। নিঃশব্দ পরিবেশে ঘুম ভালো হয়।

সুরুজ আহমেদ  

সকালে ঠিক সময়ে ঘুম ভাঙছে না। প্রতিদিনই উঠি উঠি করেও উঠতে পারছেন না। কিছু রহস্যময় উপায়ে দীর্ঘদিনের এই অভ্যাসে পরিবর্তন আনুন, সকালে ঘুম থেকে ওঠার ব্যাপারটা সহজ হয়ে যাবে।

নিচের পরামর্শগুলো চর্চা করুন। সকালে ঠিকই ঘুম ভাঙবে।

রাতে ঘুমানোর সময় ঠিক করুন
একজন সুস্থ সবল ও প্রাপ্তবয়স্ক মানুষ ৬ থেকে ৮ ঘণ্টা ঘুমালেই চলে। তাই রুটিন মাফিক ঘুমানোর চেষ্টা করুন। সকাল ৭ টায় ঘুম থেকে উঠতে হলে অবশ্যই আপনাকে ১১ টার মধ্য ঘুমিয়ে পড়তে হবে।

সকালে সুস্বাদু খাবার তৈরি করুন
সুস্বাদু খাবারের নেশা ঘুম ভাঙ্গানোর একটি অন্যতম উপায়। সকালে এমন সুস্বাদু নাস্তা বানান যা আপনার খাবারের ইচ্ছাকে জাগিয়ে তুলবে। সকালে ঘুম ভাঙতে সাহায্য করবে।

ঘরে অ্যালার্ম ঘড়ি রাখুন
কেউই সকালে ঘুম থেকে উঠতে চায় না। কিন্তু ইচ্ছার বিরুদ্ধে হলেও উঠতে হবে। তাই অ্যালার্ম ঘড়িতে সময় মত অ্যালার্ম দিয়ে রাখুন।

অ্যালার্ম ঘড়ির বোতাম চাপবেন না
হচ্ছা করেই অ্যালার্মের বোতামে চাপ দিবেন না। ধিরে ধিরে এটাকেই অভাসে পরিণত করুন। তাহলে অ্যালার্ম  বাজতে থাকবে, আপনাকেও এক সময় ঘুম ছেড়ে উঠতেই হবে। তাই অ্যালার্ম বোতাম চাপার অভ্যাসটি ত্যাগ করুন।

নিঃশব্দ পরিবেশে ঘুমানোর চেষ্টা করুন
ঘুমানোর সময় আশপাশের শব্দ কমানোর চেষ্টা করুন। প্রয়োজনে জানালা বন্ধ করে ঘুমান। নিঃশব্দ পরিবেশে ঘুম ভালো হয়। এবং ঘুম থেকে উঠার পর ক্লান্তি বোধ থাকে না।

ঘুমানোর আগে ল্যাপটপ ও মোবাইল ফোন সরিয়ে ফেলুন
ঘুমাতে যাওয়ার কমপক্ষে ৪৫ মিনিট আগে ল্যাপটপ দেখা ও ফোনে কথা বলা বন্ধ করুন। প্রয়োজনে মোবাইল ফোন সাইলেন্ট অথবা বন্ধ করুন।

হাতের নাগালে অ্যালার্ম ঘড়ি রাখবেন না
অ্যালার্ম ঘড়িটাকে এমন জায়গায় রাখুন যেখানে আপনার উঠে গিয়ে অ্যালার্ম বন্ধ করতে হয়।

একটু সেকেলে অ্যালার্ম ঘড়ি ব্যবহার করুন
বিরক্তিকর শব্দের পুরনো দিনের অ্যালার্ম ঘড়িই ঘরে রাখুন। উদ্ভট, বিরক্তিকর শব্দেই আপনার ঘুম ভেঙ্গে যাবে। 

সকালে সূর্য দেখুন
সূর্যের আলো ঘরে ঢুকতে দিন। চিকিৎসা বিজ্ঞান বলে, সকালে ঘুম থেকে উঠে অন্তত আধা ঘণ্টা সূর্যের দিকে তাকিয়ে থাকুন, ফুরফুরে লাগবে। শরীরের ক্লান্তিও দূর হয়ে যাবে। 

সকালে ব্যায়াম করার অভ্যাস করুন
ব্যায়াম করা শরীরের পক্ষে অনেক উপকারী। তাছাড়া ব্যায়াম করলে অনেক রোগ থেকেও মুক্তি পাওয়া যায়।

একটু বেশি সময় ধরে গোসল করুন
সকালে উঠে যে আবশ্যিক কাজগুলো করবেন, তার মধ্যে একটি গোসল। কমপক্ষে ৩০ মিনিট ধরে গোসল করুন।

ঘুম পেতে সফট গান শুনুন
ঘুম পেতে কম সাউন্ড দিয়ে গান শুনুন। লাইট ব্যবহার করতে চাইলে চোখে লাগে না এমন লাইট ব্যবহার করুন।

ঘরে সুগন্ধি ছিটিয়ে দিন
ঘুমাতে যাওয়ার আগে ঘরে একটু সুগন্ধি ছিটিয়ে দিন। সুগন্ধির গন্ধে ঘুম তাড়াতাড়ি আসবে।

ক্যাফেইন জাতীয় পানি ছাড়ুন
ঘুমাতে যাওয়ার কমপক্ষে ৬ ঘণ্টা আগে ক্যাফাইন জাতীয় পানি পান থেকে বিরত থাকুন।

সকালে তাড়াতাড়ি ওঠার জোরাল কারণ বের করুন
সকালে ঘুম থেকে ওঠার কারণ হিসেবে অফিস আথবা বাক্তিগত কাজের গুরুত্ব অনুযায়ী আগে থেকেই নিজেকে মানসিকভাবে প্রস্তুত রাখুন।

আস্তে আস্তে অভ্যাস বদলান
হঠাত করেই পুরনো অভ্যাস ত্যাগ করবেন না। আস্তে আস্তে পুরনো অভ্যাস ছাড়ার চেষ্টা করুন। এখন ৮ টায় ঘুম থেকে উঠলে পরবর্তীতে ৭ টায় ওঠার অভ্যাস করুন এবং ৭ টায় ওঠার অভ্যাস হয়ে গেলে ৬ টায় ওঠার অভ্যাস করুন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here