ঘরে বসে পরীক্ষা করুন রক্তচাপ

0
241
বাড়িতেই একটি রক্তচাপ পরিমাপের যন্ত্র কিনে রাখলে ভালো হয়

আমাদের ‍প্রায় প্রত্যেকের বাড়িতেই অন্তত একজন রক্তচাপের রোগী রয়েছে। আর তাদের নিয়মিত রক্তচাপ পরীক্ষা করার কথা বিশেষজ্ঞরা পরামর্শ দেন। কিন্তু প্রতিদিন ডাক্তারের কাছে গিয়ে রক্তচাপ মেপে দেখা ‍অনেক সময়ই সম্ভব হয় না। এজন্য বাড়িতেই একটি রক্তচাপ পরিমাপের যন্ত্র কিনে রাখলে ভালো হয়।

দুই হাজার টাকার মধ্যেই ভালো মানের রক্তচাপ পরিমাপের যন্ত্র পাওয়া যায়। এটি পরিবারের সবার রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে বিশেষ ভূমিকা রাখবে।

মেশিন কেনার পর নিজে নিজে রক্তচাপ পরিমাপের সঠিক নিয়ম জেনে নিন:

• রক্তচাপ পরিমাপের আগে পাঁচ মিনিট বিশ্রাম নিন এবং প্রশান্ত (রিলাক্স) থাকুন। এ সময় টিভি দেখা বা কথা বলবেন না।
• স্বাচ্ছন্দ্যবোধ না করলে, ঠাণ্ডা লাগলে, রাগাম্বিত হলে, কোনো কিছুর চাপ বা টেনশনে থাকলে কিংবা ব্যথা অনুভূত হলে সেসময় রক্তচাপ পরিমাপ করবেন না।
• খাওয়ার পর অন্ততপক্ষে ২ ঘণ্টা অপেক্ষা করুন এবং কফি বা ধূমপান করার পর আধাঘণ্টা অপেক্ষা করুন।
• প্রস্রাব এবং পায়খানার বেগ থাকলে রক্তচাপ মাপার আগে তা সেরে ফেলুন।

বাহুর নিচে তোয়ালে অথবা বালিশ রাখুন, যেন হাত হার্টের বা হৃৎপিণ্ডের লেভেলে থাকে.
বাহুর নিচে তোয়ালে অথবা বালিশ রাখুন, যেন হাত হার্টের বা হৃৎপিণ্ডের লেভেলে থাকে.

• এমন চেয়ারে বসুন, যাতে আপনি হেলান দিয়ে বসতে পারেন এবং হাত রাখার জন্য সাইড টেবিল ব্যবহার করুন।
• বাহুর নিচে তোয়ালে অথবা বালিশ রাখুন, যেন হাত হার্টের বা হৃৎপিণ্ডের লেভেলে থাকে।
• পায়ের পাতা মেঝের সমান্তরালে রাখুন, পায়ের ওপর পা তুলে বসবেন না।
• সাতদিন ধরে বাড়িতে সকাল-সন্ধ্যা দু’বার রক্তচাপ পরিমাপের মাত্রাকে বাড়ির রক্তচাপের রেকর্ড হিসেবে গণ্য করা উচিত।
• সঠিক নিয়মে রক্তচাপ পরিমাপের পরপরই তা লিখে রাখুন।
• বাড়িতে একদিন অথবা প্রথমদিন রক্তচাপ মাপার মাত্রাকে সঠিক ধরা উচিত নয়।

ব্লাড প্রেশার রিডিং যখন ১৪০/৯০ mm Hg বা এর চেয়েও বেশি হয় তখন বলা হয় হাইপারটেনশন। কয়েক দিন টানা ব্লাড প্রেশার রিডিং বেশি থাকলে অবশ্যই চিকিৎসকের পরামর্শ নিন।

তথ্যসূত্রঃ হেলথ টিপস ডট কম

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here