মানুষ পারিবারিক অপ্রিয় সত্য গোপন করে কেন?

0
349
মানুষ পারিবারিক অপ্রিয় সত্য গোপন করে কেন?
কী এমন কথা, যা পরিবারের কিছু লোকই জানে? অন্যরা জানে না।

আর্টস্টাইল কিউরেটর 

বসার ঘর, বড় বারান্দা কিংবা উঠোনের নানা জায়গায় বাড়ির বড়দের ফিসফাস চলছে। কিছু কথা কানে আসছে। কিছু আসছে না। ঠিক বোঝাও যাচ্ছে না। বাড়ির ছোটরা খানিকটা দূরে দাঁড়িয়ে বড়দের এমন আচরণ লক্ষ করছে। আচমকা সেখানে পরিবারের গুরুজনেরা প্রবেশ করলেন। ঢুকেই ছোটদের দিকে কড়া নজরে তাকালেন। যার অর্থ, তোমাদের এত কৌতহল কেন? যারা ফিসফাস করছিলেন, তাদেরকে দিলেন ধমক। সবার কৌতুহল আরও বেড়ে গেল। কী এমন কথা, যা পরিবারের কিছু লোকই জানে? অন্যরা জানে না? বাংলাদেশের অধিকাংশ পরিবারেই কম-বেশি এমন চিত্র দেখা যায়।

মূলত পরিবারের সুখ আর মূল্যবোধ ধরে রাখার উদ্যেশ্যেই এমন সব সত্যকে গোপন করার চেষ্টা চলে। চরম পারিবারিক সত্য! জানাজানি হলে পারিবারিক ভিত্তির বিপর্যয় ঘটতে পারে। সামাজিক ও পারিবারিক জীবনে মর্যাদার ঘটতি হতে পারে। তাই-ই এই চেষ্টা? হয়ত অন্য কিছু! গুরজনদের চোখ রাঙানি আর ফিসফাসের আড়ালে বাড়ির লোকদের মধ্যে বারবারই উঠে আসছে প্রশ্নটি— ‘এত গোপনীয়তা কেন’?

১) মর্যাদাহানির ভয়। মুরব্বিদের আশঙ্কা, গোপন কথাটি জানাজানি হলে পারিবারিক মান-মর্যাদা নষ্ট হবে। পরিবারের অন্যরাও বিরূপ প্রতিক্রিয়া দেখাতে পারে।

২) সত্য যদি হজম না হয়! সত্যের মাত্রাটা এতটাই কড়া যে সেটা গ্রহণ করার ক্ষমতা অন্যদের নাও থাকতে পারে।

৩) সমস্যা সৃষ্টির আশঙ্কা। চরম গোপন সত্যটা অন্যরা জেনে গেলে পারিবারিক বিশ্বাস নষ্ট হতে পারে। মানসিকভাবেও বিপর্যস্ত হয়ে পড়তে পারে কেউ কেউ।

৪) বেশি জানাজানি হলে মুশকিল। পরিবারের এমন একজন এই গোপন সত্যটা জেনে গেল, যার পেটে কথা থাকে না। তার বন্ধুমহলে সে সত্য ফাঁস হয়ে যেতে পারে। সেখান থেকে তা আরও নানা জায়গায় ছড়িয়ে পড়তে পারে।

৫) আসল সত্য বেরিয়ে পড়ার আশঙ্কা। পরিবারের ছোটরা হয়ত ঘটনা সম্পর্কে জানে। কিন্তু তাদেরকে রেখেঢেকে বলা হয় বা এক্কেবারে ভিন্ন মোড়কে শোনানো হয়। কারণ, গোপন সত্যটি বেরিয়ে পড়লে  গুরুজনদের সম্পর্কে তাদের ধারণা পাল্টে যেতে পারে।

৬) পরিবারে ভাঙনের আশঙ্কা। চরম সত্য বেরিয়ে পড়ায় বহু পরিবারে ভাঙন লেগেছে। এমন উদাহরণ বহু আছে। তাই সত্য গোপন করার পিছনে পরিবারে ভাঙন আটকানোরও একটা চেষ্টা করেন গুরুজনেরা।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here