দাঁতের জন্য ভালো–মন্দ খাবার

দাঁতের জন্য ভালো–মন্দ খাবার
দুধ, পনির, বাদাম, দই—এসব খাবার ক্যালসিয়াম ও ফসফরাসের জোগান দেয় এবং দাঁতের খনিজ অংশকে মজবুত করে।

আর্টস্টাইল কিউরেটর  

কেউ বলেন আখ চিবিয়ে খাও, দাঁত ভালো থাকবে। কেউ বলেন প্রতিদিন একটি আপেল দাঁতকে সুস্থ রাখে। আসলেই দাঁতের জন্য ভালো-মন্দ খাবার বলতে কিছু কি আছে? কী সেসব, জেনে নি।

এক. কমলার রস, কোমল পানীয়, টক ফল ইত্যাদিতে প্রচুর অ্যাসিড থাকে। এমন খাবার দাঁতের শক্ত এনামেলকে ক্ষয় করে। তাই কমলা বা আনারসের খাওয়ার সময় স্ট্র ব্যবহার করা ভালো। ফলের রস খাওয়ার পর কুলকুচি বা ব্রাশ করুন।

দুই. অতিরিক্ত গরম কোনো খাবার যেমন পিৎজা বা শিঙাড়া বা পিঁয়াজুতে কামড় দিয়ে সঙ্গে সঙ্গে যখন আমরা ঠান্ডা পানীয়তে চুমুক দিই, তখনই কিন্তু এনামেলে একটা চুলের চেয়ে সূক্ষ্মèফাটল সৃষ্টি হয়। হঠাৎ গরম, হঠাৎ ঠান্ডা খাওয়ার ফলে এনামেল কিছুটা প্রসারিত হয় বা বেড়ে যায় এবং ফাটল ধরে। তাই গরম খাবারের সঙ্গে ঠান্ডা পানীয় খাওয়ার অভ্যাস বাদ দিন।

তিন. যেকোনো চিনিযুক্ত পানীয় দাঁতের ক্ষতি করে। চিনি দন্তমলে অবস্থিত জীবাণুর সঙ্গে বিক্রিয়া করে অ্যাসিড তৈরি ও এনামেলের ক্ষতি করে। পানীয় হিসেবে সাধারণ পানি বা দুধের তুলনা নেই।

চার. আঠালো ও চিনিযুক্ত খাবার যেমন ক্যান্ডি, চকলেট, ললিপপ, কেক, পেস্ট্রি ইত্যাদি যথাসম্ভব এড়ানো উচিত। অতিরিক্ত চা-কফি দাঁতের স্বাভাবিক রংও নষ্ট করে।

পাঁচ. মচমচে ভঙ্গুর খাবারের ক্ষুদ্র কণা সহজেই দাঁতের ফাঁকে আটকে যায় এবং পরে দাঁত ও মাড়ির ক্ষতি করে। যেমন চিপস-জাতীয় খাবার।

ছয়. খুব ঠান্ডা খাবার, বরফের টুকরো দাঁতের এনামেলের ক্ষতি করে।
দুধ, পনির, বাদাম, দই—এসব খাবার ক্যালসিয়াম ও ফসফরাসের জোগান দেয় এবং দাঁতের খনিজ অংশকে মজবুত করে। সবচেয়ে ভালো পানীয় হলো পানি, দুধ ও চিনি ছাড়া চা বা গ্রিন টি। জলীয় অংশ বেশি ও খুব শক্ত বা খুব নরম নয় এমন ফলমূল যেমন আপেল, পেয়ারা ইত্যাদিও দাঁতের জন্য ভালো।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here