বর্ষায় পায়ের বাড়তি যত্ন

নিয়মিত যত্নে পা থাকবে সুন্দর

প্রতি মৌসুমেই ত্বকের আলাদা রকম যত্ন দরকার পড়ে। বিভিন্ন সময়ে শুষ্কতা কেড়ে নেয় ত্বকের কোমলতা। আবার কখনো গরমে ত্বকে পড়ে কালো কালো ছোপ। বর্ষাকালে পায়ের ত্বকের যত্ন নিতে হয় বেশি। এ সময় রাস্তার নোংরা পানি, কাদা এমন অনেক কিছুর ওপর দিয়েই চলতে হয়। আর যখন-তখন বৃষ্টির পানিতে ভেজা তো আছেই। পায়ের যত্নে বেশ কিছু বিষয় জেনে নিন যা সহজেই আপনার পা’কে রাখবে সুন্দর। জেনে নিন পায়ের যত্নে কী করা উচিত এই সময়ে। হাত ও মুখ ধোয়ার মতো প্রতিদিন পায়ের যত্ন নেওয়া খুবই জরুরি। গোসলের সময়ই ব্রাশ ব্যবহার করে পা ধুয়ে নেওয়াসহ প্রতিদিন রাতে ঘুমানোর আগে পা ধুয়ে লোশন, তেল বা পেট্রোলিয়াম জেলি লাগিয়ে রাখুন। এ ধরনের যত্নগুলো প্রতিদিন নিলে পায়ের ত্বকের সমস্যা কমে আসবে অনেকটা।

পায়ের জন্য চাই আলাদা যত্ন

বর্ষার সময়টাতে পায়ে ফুসকুড়ি পড়ার আশঙ্কা বেড়ে যায়। বিশেষ করে যাঁদের ত্বক সংবেদনশীল। এ ক্ষেত্রে পায়ে মোম লাগিয়ে পেডিকিওর করার পদ্ধতিটা আরাম দেবে। বর্ষার সময় ১৫ দিন পরপর পেডিকিওর করানো উচিত। এছাড়া বাড়িতে সপ্তাহে দুই দিন স্ক্রাব ব্যবহার করতে পারেন। চালের গুঁড়ার সঙ্গে লেবুর রস মিশিয়ে নিতে পারেন। পায়ে র‍্যাশ ওঠার প্রবণতা থাকলে নিমপাতার পেস্টও যোগ করে নিন। উজ্জ্বলতা বাড়াতে চাইলে হলুদের গুঁড়া যোগ করে নিন স্ক্রাবের পেস্টে। বাড়িতে পেডিকিওর করার সময় হালকা গরম পানিতে লবণ মিশিয়ে নিন। এক টেবিল চামচ শ্যাম্পু এক গামলা পানিতে মিশিয়ে নিয়ে সেটাতেও পা ভিজিয়ে রাখতে পারেন কিছুক্ষণ। চামড়া নরম হয়ে এলে ঝামা দিয়ে ঘষে নিন। নখ পরিষ্কার করার সময় পুশার ব্যবহার করতে পারেন। যাঁদের বহুমূত্র রোগ আছে, তাঁরা কাঠের কাঠি ব্যবহার করুন। শাসলিকের কাঠির আগা ভেঙে নিয়েও এ কাজে লাগাতে পারেন। নখের ওপরের অংশ পরিষ্কার করার আগে পেট্রোলিয়াম জেলি লাগিয়ে নিন। এরপর লেবুর টুকরা নিয়ে নখ ঘষলেই চকচকে ভাব চলে আসবে। পা জোড়াকে ভালোমতো ময়েশ্চার করতে সবার শেষে পেট্রোলিয়াম জেলি লাগাতে পারেন। এতে শুষ্কতা কমে আসবে অনেকখানি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here