গরমে শরীর ঠান্ডা রাখার কিছু ঘরোয়া উপায়

0
635
গরমে শরীর ঠান্ডা রাখার কিছু ঘরোয়া উপায়
শরীর ঠান্ডা রাখার ঘরোয়া কৌশল অবলম্বন করুন

আর্টস্টাইল কিউরেটর  

ক্রমেই গরম বাড়ছে। তীব্র তাপপ্রবাহ থেকে বাঁচতে সতর্ক থাকুন। এমন অবস্থায় শরীরে পানি ও তাপমাত্রার পরিমাণ নিয়ন্ত্রণে রাখা জরুরি। তাই শরীর ঠান্ডা রাখার কৌশল অবলম্বন করুন। নইলে বাইরে বেরোলে হুট করেই অসুস্থ হয়ে পড়বেন। গরমে ঠান্ডা থাকার কিছু ঘরোয়া পদ্ধতি আছে। চেষ্টা করে দেখুন, আরাম পাবেন।

এখানে শরীর ঠান্ডা রাখার জন্য ঘরোয়া কিছু উপায় এবং পানীয়ের খোঁজ রইল। যা আপনার শরীরকে শীতল করবে।    

  • পেঁয়াজের রস কানের পিছনে এবং বুকের উপরে লাগালে শরীরের তাপমাত্রা কমবে। শুধু তাই নয়, জিরে এবং মধুর সঙ্গে একটু রোস্টেড পেঁয়াজও আপনার শরীরকে ঠান্ডা রাখতে সাহায্য করবে। গরমে কাঁচা পেঁয়াজ এমনিতেও খুব কাজের।
  • তেতুলে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন, মিনারেল এবং ইলেক্ট্রোলাইটস আছে। ফুটন্ত গরম পানিতে পাকা কিংবা কাঁচা তেতুল ফেলে রস তৈরি করুন। পনি ছেকে নিয়ে একটু চিনি কিংবা গুড় মিশিয়ে খেলে শরীর ঠান্ডা হবে।
  • কাঁচা আমে প্রচুর ইলেক্ট্রোলাইট থাকে। আমের জুস করে খান। তাতে বিট লবণ ও জিরাসহ বিভিন্ন মশলা মিশিয়ে নিতে পারেন। এসবের উপাদান শরীরকে ঠান্ডা রাখতে সাহায্য করবে। গরমের দিনে দুই-তিন বার আমের জুস খান। শরীর শীতল করতে এ ফলের জুড়ি মেলা ভার।
  • গরমে ঘামাচি ও শরীর জ্বলুনী অত্যান্ত সাধারণ সমস্যা। ধনে পাতা অথবা পুদিনা পাতার রস সামান্য চিনি দিয়ে খেলে শরীর জ্বলুনী ও ঘামাচির যন্ত্রণা থেকে মুক্তি পাবে। পাশাপাশি শরীরও ঠান্ডা হবে।
  • অ্যালোভেরা প্রচুর ভিটামিন ও মিনারেলে ঠাসা। এর জুস করে খান। এটি বাইরের পরিবেশ ও শরীরের মধ্যে ভারসাম্য করে দেয়। ফলে শরীরের প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ে। পাশাপাশি ঘামাচি ও শরীর জ্বলুনী থেকে রক্ষা পেতে অ্যালোভেরার জেল ব্যবহার করতে পারেন।
  • চন্দন কাঠের গুঁড়ো পানির সঙ্গে মিশিয়ে হালকা করে কপালে ও বুকের উপরে মালিশ করুন। শরীর ঠান্ডা হবে। এছাড়া কপালে স্যান্ডেল অয়েল মাখলেও আরাম লাগবে। ত্বকের জ্বলুনী কমাতেও এটি বিশেষ উপকারী।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here